অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারী ২০২২ | ৫ই মাঘ ১৪২৮


ইলিশা লঞ্চঘাটে আ’লীগের ৩ চেয়ারম্যান প্রার্থীকে বরণ করতে জনতার ঢল


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৭ই ডিসেম্বর ২০২১ রাত ১০:২২

remove_red_eye

৬৫

আকতারুল ইসলাম আকাশ : ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা,পশ্চিম ইলিশা ও দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের মনোনিত ৩ প্রার্থী সরোয়ার্দী মাষ্টার, জহিরুল ইসলাম জহির ও ইফতারুল হাসান স্বপন  দলীয় মনোনয়ন নিয়ে ঢাকা থেকে ইলিশা লঞ্চঘাটে এসে পৌছলে পৃথক ভাবে তাদের সমর্থক নেতাকর্মীরা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে তাদের বরণ করে নেন।
মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর)  ১৩ নং দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নে আসন্ন ইউপি চেয়ারম্যানে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রার্থী ইফতারুল হাসান স্বপনকে বরণ করে নিতে ইলিশালঞ্চঘাটে হাজারো কর্মীর ঢল নেমেছে। এসময় কর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত হন আওয়ামী লীগ মনোনয়নের এই প্রার্থী। তিনি ঢাকা থেকে কর্ণফুলী-১৪ লঞ্চযোগে ইলিশাঘাট হয়ে তাঁর নির্বাচনী এলাকা দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের মাটিতে প্রথম পা ফেলেই ধন্যবাদ জানান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও দেশনেত্রী শেখ হাসিনাকে।এছাড়াও বিশেষ ভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ৬৯’র গণঅভ্যুত্থানের মহানায়ক জীবন্ত কিংবদন্তী ভোলা মাটি ও মানুষের নেতা সাবে মন্ত্রী ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ কে।এসময় সাধারণ জনগণ ও তাঁর দলীয় নেতাকর্মীদের শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে তার নির্বাচনী এলাকা প্রিয় দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়ন। এ সময় তিনি দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের সাধারণ জনগণ ও তাঁর দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রাখেন।তিনি বলেন, জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস। দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের জনগণ চেয়েছেন বলেই আজ আমি দলীয় নৌকা প্রতীক পেয়েছি। আমি যতদিন বাচবো সুখে দুঃখে দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নবাসীকে তিনিই বাঁচবো। এসময় তিনি আরো বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ৫ জানুয়ারি তিনি নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন। তাই তাঁর দলীয় সকল নেতাকর্মী ও জনগণকে মিলেমিশে কাজ করার জন্য আহবান জানান। পরে ১৩ নং দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়ন জুড়ে মোটরসাইকেল শোডাউন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগসহ বিভিন্ন নেতা-কর্মী।

অপর দিকে  ভোলা সদর উপজেলা ২নং পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যানে প্রার্থী সরোয়ার্দী মাষ্টারকে বরণ করে নিতে ভোলার ইলিশা লঞ্চঘাটে হাজারো কর্মীর ঢল নেমেছে। এসময় কর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত হন আওয়ামী লীগ মনোনীত এই প্রার্থী। সোমবার (৬ ডিসেম্বর) তিনি রাজধানী ঢাকা থেকে কর্ণফুলী-১৪ লঞ্চযোগে তাঁর নির্বাচনী এলাকায় আসেন।এসময় সাধারণ জনগণ ও তাঁর দলীয় নেতাকর্মীদের শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে ইলিশালঞ্চঘাট। জংশন বাজারে তাঁর ইউনিয়নের সাধারণ জনগণ ও তাঁর দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে দেন তিনি।
এসময় তিনি বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ৫ জানুয়ারি তিনি নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন। তাই তাঁর দলীয় সকল নেতাকর্মী ও জনগণকে মিলেমিশে কাজ করার জন্য আহবান জানান। পরে ইলিশা ইউনিয়ন জুড়ে মোটরসাইকেল শোডাউন করা হয়। এসময় তাঁর সাথে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের কয়েকশো নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। 

এছাড়াও ভোলা সদর উপজেলা ৩নং পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নে আসন্ন ইউপি চেয়ারম্যানে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন প্রার্থী জহিরুল ইসলাম জহিরকে বরণ করে নিতে ভোলার ইলিশা লঞ্চঘাটে হাজারো কর্মীর ঢল নেমেছে। এসময় কর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত হন আওয়ামী লীগ মনোনীত এই প্রার্থী। মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) তিনি রাজধানী ঢাকা থেকে কর্ণফুলী-১৪ লঞ্চযোগে তাঁর নির্বাচনী এলাকায় আসেন।এসময় সাধারণ জনগণ ও তাঁর দলীয় নেতাকর্মীদের শ্লোগানে শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে ইলিশালঞ্চঘাট। হাওলাদার বাজারে তাঁর ইউনিয়নের সাধারণ জনগণ ও তাঁর দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে দেন তিনি।এসময় তিনি বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ৫ জানুয়ারি তিনি নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন। তাই তাঁর দলীয় সকল নেতাকর্মী ও জনগণকে মিলেমিশে কাজ করার জন্য আহবান জানান। পরে পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়ন জুড়ে মোটরসাইকেল শোডাউন করা হয়।এসময় তাঁর সাথে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের কয়েকশো নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।