অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শুক্রবার, ১৮ই জুন ২০২১ | ৪ঠা আষাঢ় ১৪২৮


ইয়াসের প্রভাবে ভোলায় অবশেষে বৃষ্টি


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২৪শে মে ২০২১ রাত ১১:২০

remove_red_eye

৭০

ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায়   প্রশাসনের প্রস্তুতি

বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক : ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে  সোমবার ভোলায় দিন ভর তীব্র গরম পড়লেও সন্ধ্যার পর বৈরী আবহাওয়া বিরাজ করে। রাত ৮ টা থেকে প্রায় ১০ টা পর্যন্ত থেমে থেমে কয়েক দফা বৃষ্টি ও আকাশে বজ্রপাত হয়েছে। এছাড়া  তেমন বড় ধরনের কোনো প্রভাব পড়েনি।
এদিকে সকাল থেকেই আকাশ পরিষ্কার ছিল । তবে বেলা ১২ টার দিকে মাঝে মাঝে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ও হালকা নদীর তীরে বাতাস বয়ে গেছে। উত্তাল হয়ে উঠে মেঘনা নদী। বাতাসের সাথে মেঘনা নদীর ঢেউ আছড়ে পড়ে নদীর তীরে ।
এদিকে তীব্র তাপদাহে সাধারণ মানুষ চরম ভোগান্তির মধ্যে রয়েছে। বিশেষ করে সাধারণ নিন্ম আয়ের  শ্রমজীবী মানুষ চরম বিপাকের মধ্যে রয়েছে। এদিকে ভোলায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াস মোকাবেলায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৭০৯টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত করা হয়েছে। এতে মোট ৫ লাখ ৩৬ হাজার মানুষ আশ্রয়  গ্রহণ করতে পারবে।১৩ হাজার সেচ্ছাসেবক মাঠে কাজ করবে।সোমবার সকালে ভোলা সদর উপজেলার ইলিশা এলাকায় আশ্রয় কেন্দ্র গুলো  পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কাজ শুরু করেছে স্বেচ্ছাসেবকরা। এছাড়াও সভা করে স্বেচ্ছাসেবকদের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করা হয়।
এছাড়া প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঝুঁকিপূর্ণ চর অঞ্চল ৪০ টি স্পট নির্ধারণ করা হয়েছে। যেখান থেকে ৩ লাখ ১৮ হাজার মানুষকে সরিয়ে নেয়া হবে। রবিবার বিকালে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো: তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী এ তথ্য জানান।
সভায় জেলা প্রশাসক জানান, দুর্যোগ মোকাবেলায় জেলায় মোট ৭৬ টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে স্যালাইন, ঔষুধসহ অন্যান্য ব্যবস্থা। জেলায় একটি ও সকল উপজেলায় একটি করে কন্ট্রোল রুম খোলা থাকবে।
এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ড ঘূর্ণিঝড় ইয়াস  মোকাবিলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি  গ্রহন করেছে। ঘূর্নিঝড় 'ইয়াস' মোকাবেলা  ৩২৫ কি.মি. বেড়িঁবাধের মধ্যে ৫৩ কি.মি. বাধেঁর ¯েøাপ সিসি বøক ধারা বাধঁ  সংরক্ষন করা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ন বেড়িবাধঁ গুলোকে মেরামত করা হয়েছে। এছাড়া  ইয়াসের তান্ডবের হাত থেকে রক্ষার জন্য ৩৫ হাজার জিও ব্যাগ মজুত রাখা হয়েছে। এছাড়াও সিগনাল বাড়ার সাথে সাথে উপকূলের মানুষকে সচেতন করা হবে জানান জনপ্রতিনিধিরা।