অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২৫শে অক্টোবর ২০২০ | ১০ই কার্তিক ১৪২৭


ভোলায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নদীতে মাছ ধরায় ২৪ জেলের করাদণ্ড


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭ই অক্টোবর ২০২০ রাত ১১:২১

remove_red_eye

৬০



১৫ জনের অর্থ দন্ড


হাসনাইন আহমেদ মুন্না : ভোলা সদর, চরফ্যশন ও লালমোহন উপজেলায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মা ইলিশ শিকারের দায়ে ৪৩ জেলেকে আটক করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মেঘনা ও তেতুঁলিয়া নদীর বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে আটকৃতদের মধ্যে সদরে ১৪, চরফ্যশনে ২৪ ও লালমোহনে ৫ জেলে রয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে ২৪ জনকে ১ বছর কারাদন্ড ও ১৫ জনকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থ দন্ড প্রদান করা হয়। এছাড়া অপ্রাপ্ত বয়স্ক ৪ জনকে মুছলেকা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।


সংশ্লিষ্ট সূত্র জানান, চরফ্যশনে ১৪ জনকে ১ বছর করে জেল ও ১০ জনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া সদরের ১৪ জনের মধ্যে ৯ জনকে ১ বছর করে জেল ও ৫ জনকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে। আর লালমোহনে আটক ৫ জনের মধ্যে ৪ জন অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয় ও ১জনের ১ বছরের সাজা হয়। এসময় ১০ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল ও প্রায় ৩০ কেজি ইলিশ উদ্ধার করা হয়।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম আজাহারুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে চরফ্যশনের তেঁতুলিয়া নদী থেকে ১৪ জেলেকে আটক করে নির্বাহী মেজিস্ট্রেট ইমরান মো: সাইকের আদালতে নেয়া হলে বিচারক প্রত্যেককে ১ বছর করে দন্ড দেন। এর আগে সন্ধ্যায় একই নদীতে অভিযান চালিয়ে ১০ জনকে আটক করা হয়। পরে রাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রুহুল আমিন প্রত্যেককে ১ বছর করে দন্ডাদেশ প্রদান করেন।
 
অপরদিকে শনিবার বিকেলে সদর উপজেলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে ১৪ জেলে আটক হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মিজানুর রহমানের ভ্রাম্যমাণ আদালত ৯জনকে ১ বছর করে কারাদন্ড ও ৫জনকে ৫ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড প্রদান করেন। জব্দকৃত ১০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ধ্বংশ করা হয়েছে এবং ইলিশ দুস্থ:দেও মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।