অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, বুধবার, ২২শে সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭ই আশ্বিন ১৪২৮


চরফ্যাসনে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল নবম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থী


চরফ্যাসন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৭শে জুলাই ২০২১ রাত ১০:৪১

remove_red_eye

১৫৪



বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক : ভোলা জেলার চরফ্যাসন উপজেলার দুলার হাট থানার নুরাবাদ ইউনিয়নে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেল নবম শ্রেণীর এক মাদ্রাসা ছাত্রী। সোমবার রাত ৮ টার দিকে ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড এলাকার চর তফাজ্জল গ্রামে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য গ্রাম পুলিশের সহায়তায় বিয়ের আয়োজন বন্ধ করে দেন। ঐ শিক্ষার্থী দরিদ্র রিক্সাচালক আবু তাহেরের কন্যা।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল নোমান জানান, স্থানীয় দুলার হাট মহিলা দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্রীর সাথে চরকলমী ইউনিয়নের চরমঙ্গল গ্রামের দিনমজুর রাকিবের সাথে বিয়ের আয়োজন করা হয়। মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়ায় একটি নকল জন্ম নিবন্ধন সনদ এর মাধ্যমে বিয়ের চেষ্টা চলছিলো। সোমবার সন্ধ্যায় ছিলো তাদের গায়ে হলুদ। আমি খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যকে বিয়ে বন্ধের নির্দেশনা দিলে তিনি গিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।
ইউএনও আরো জানান, মেয়ের বাবা একজন দরিদ্র রিক্সা চালক ও ছেলের বাবা একজন কৃষক। ছেলে নিজেও একজন দিনমজুর। তাই সামাজিক ও মানবিক বিষয় বিবেচনা করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। মেয়ের বয়স ১৮ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না বলে মেয়ের বাবা আমাকে নিশ্চিত করেছে।
ইউপি সদস্য আব্দুল মতিন বলেন, রাতেই তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিলো। খবর পেয়ে আমি গ্রাম পুলিশ নিয়ে মেয়ের বাড়িতে গিয়ে তাদের বিয়ের আয়োজন বন্ধ করি। ছেলে পক্ষ ও আমন্ত্রিত অতিথিদের নিজ নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দেই।