অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২৫শে জুলাই ২০২১ | ১০ই শ্রাবণ ১৪২৮


চরফ্যাশনে লকডাউন উপেক্ষা করে বসছে পশুরহাট


চরফ্যাসন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯ই জুলাই ২০২১ সকাল ০৮:২২

remove_red_eye

৪১

চরফ্যাশন প্রতিনিধি:: চলমান লকডাউনের মধ্যে ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বসছে পশুরহাট। এসব পশুরহাটে ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতিতে চরমভাবে উপেক্ষিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হলেও মুনাফালোভী ইজারাদারেরা মানছেন না সরকারি বিধিনিষেধ।

 

এসব হাটে একজনের সঙ্গে অন্যজন গা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে ছিলেন। গা-ঘেঁষে দাঁড়িয়ে কেউ দরদাম করছেন, আবার কেউ বা কোরবানির জন্য পশু কিনছেন। উপস্থিত ক্রেতা-বিক্রেতাদের অধিকাংশের মুখে ছিল না মাস্ক।

 

সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই এসব পশুরহাটে। সরকারি নির্দেশনার তোয়াক্কা না করেই বাজার পরিচালনা করছেন এসব ইজারাদাররা।

 

বৃহস্পতিবার (৮জুলাই) উপজেলা সদর থেকে ৬ কিলোমিটার পূর্ব-দক্ষিণে অবস্থিত আসলামপুর ইউনিয়নের বর্দারহাট বাজার সংলগ্ন স্কুল মাঠের পশুরহাটে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। এতে প্রাণঘাতি করোনার সংক্রমণ ভয়াবহ হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

 

স্থানীয় সচেতন মহল বলছেন, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ঘোষিত লকডাউনে গত ১ জুলাই থেকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে চরফ্যাশনের বিভিন্ন পশুরহাটে পশু বেচাকেনা বন্ধ রাখার ঘোষণা দিলেও বিভিন্ন এলাকায় পশুরহাট বসিয়ে গরু-ছাগল বেচাকেনা চলছে।

 

বর্দারহাট বাজারে গরু কিনতে আসা সাব্বির আহমেদ বলেন, সবকিছু স্বাভাবিক সময়ের মতোই চলছে। কেউ তো সামাজিক দূরত্ব মানছে না। এমন কি মুখে মাস্কও ব্যবহার করছে না। ইজারাদারও ক্রেতা বিক্রেতাদের কিছু বলছে না। তবে ইজারাদার আব্দুস সাত্তার জানান, ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের মাস্ক ব্যবহারে সচেতন করলেও তারা মানছেন না স্বাস্থ্যবিধি।

 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, গরুর বাজার বন্ধের ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের বলা হয়েছে।