অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২০শে জুন ২০২১ | ৬ই আষাঢ় ১৪২৮


ভোলায় মিথ্যা অপহরণ মামলা একমাস পর উদ্ধার হলো ভিক্টিম


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৮ই মে ২০২১ রাত ১১:২৩

remove_red_eye

৪৬

আকতারুল ইসলাম আকাশ \ ভোলার দক্ষিণ গাজীপুর চরের গাজীপুর মোজা, মধুপুর মোজা ও  চরবৈরাগী মৌজার সীমানা সেটেলমেন্ট পরিমাণ করার নির্দেশ দেন ভোলা জেলা প্রশাসক। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে গত ৪ এপ্রিল জেলা জজ কোর্টের সার্ভে হুমায়ূন কবিরের উপস্থিতিতে জমির  সীমানা সেটেলমেন্ট করার সময় হঠাৎ দুই পক্ষের বিরোধ হয়। সেই বিরোধের জের ধরে ভোলা  পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের মৃত ইমাম কাদের মানিক চৌধুরীর ছেলে গোলাম সরওয়ার টিপু পশ্চিম  ইলিশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবু ছায়েদ তালুকদারসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে ভোলা জজ কোর্টে একটি মিথ্যা অপহরণ মামলা দায়ের করেন। যাঁর মামলা নম্বর-১১৪। মামলার অন্যান্য আসামিরা হলেন, মো. ফিরোজ, শাহানাজ, কামাল, শাহজাহান, লডেস বাবুল, বেলায়েত, আলাউদ্দিন মাঝি, আবদুল হক, আলমগীর মিঝি ও মো. বাহার মাষ্টার। মামলায় বলা হয়, এক নম্বর সাক্ষী ছালে আহম্মেদ হাসানকে আসামিরা খুন করে মেঘনা নদীতে পেলে দিয়েছে অথবা অপহরণ করেছে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তার তদন্তভার ভোলা সদর মডেল থানার ওসিকে প্রদান করেন। পরে ভোলা সদর থানা পুলিশ সোর্সের মাধ্যমে ১ মাস ৩ দিন পর সদর  উপজেলার ইলিশা লঞ্চঘাট থেকে তাকে উদ্ধার করে ভোলা থানায় নিয়ে আসে। ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনায়েত হোসেন জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ভিক্টিম স্বীকার করেছে সে অপহরণ হয়নি। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও নিশ্চিত  করেছেন তিনি।