অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শনিবার, ১৭ই এপ্রিল ২০২১ | ৪ঠা বৈশাখ ১৪২৮


ভোলায় করোনা সচেতনতায় মানবতার দেয়াল আপনার প্রয়োজনে নিয়ে যান অন্যের প্রয়োজনে দিয়ে যান


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৭ই এপ্রিল ২০২১ রাত ১১:২৪

remove_red_eye

৯০

বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক \ করোনা ভাইরাস সংক্রামনরোধে জনসচেতনায়  ভোলায় বসানো হয়েছে 'মানবতার দেয়াল'। বুধবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে শহরের সদর রোড চত্বরে  'বেস্ট ইনিসিয়েটিভ অব ভোলা এসোসিয়েশন' (বিবা) নামের একটি প্রতিষ্ঠান পক্ষ থেকে এ মাবতার দেয়াল বসানো হয়। সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে মানবতার দেয়ালের কার্যক্রম সবার জন্য উম্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে। এখানে রাখা হয়েছে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী, খাবার ও পোশাক।
'আপনার প্রয়োজনে নিয়ে যান, অন্যের প্রয়োজনে দিয়ে যান'  ব্যানারে এমন লেখা টাঙ্গিয়ে জনসাধারনের দৃষ্টি আকর্ষন করা হচ্ছে। মানবতার দেয়াল নামের এ স্টোর থেকে বিনামূল্যে  বিতরণ করা হচ্ছে মাক্স, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, খাদ্য ও পোশাক সামুগ্রী। শুধু তাই নয়, করোনা সচেতনতায় চালানো হচ্ছে প্রচার-প্রচারনাও। আতœমানবতার সেবার ব্যাতিক্রমী এ কার্যক্রমে উৎসাহিত হচ্ছেন পথচারি, রিক্সাচালক, সচেতনমহলসহ বিভিন্ন স্থরের মানুষ।
সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, সদররোড এলাকার চৌধুরী প্লাজা সংলগ্ন বিয়ে বাজারের সামনে দরিদ্র  পরিবার ‘মানবতার দেয়াল’ স্টোর থেকে খাদ্য সামুগ্রী বিশেষ করে চাল, ডাল, পেয়াজ ও তেল সংগ্রহ করছেন। এখান থেকে কেউ নিচ্ছেন করোনা স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী
অন্যদিকে সমাজের বৃত্তিবান ব্যক্তিরাও বাড়িয়ে দিয়েছেন তাদের সহযোগীতার হাত।  মানবতার দেয়ালে তারা নিজ নিজ উদ্যোগে জমা দিচ্ছেন স্বাস্থ্যসুরক্ষা এবং বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী। যা এখান থেকে সংগ্রহ করছেন দরিদ্র মানুষ।
করোনা ভাইরাসের কারনে লকডাইন পরিস্তিতিতে বিয়ে বাজার প্রতিষ্ঠানের  এমন সামাজিক ও সেবামূলক কাজের প্রশংসাও করেন কেউ কেউ। তারা বলছেন, এমন উদ্যোগে একদিকে যেমন  মানুষ করোনা বিষয়ে সচেতন হচ্ছে অন্যদিকে দরিদ্র মানুষ কিছুটা হলেও সহযোগীতা পাচ্ছেন।
বিবা প্রতিষ্ঠাতা মনিরুল ইসলাম জানান, করোনা কারনে  দরিদ্র মানুষ কিছুটা হলেও অসহায় পড়ে পড়েছে, তাদের পাশে দাড়ানোর লক্ষ্যে মানবতার দেয়াল বসিয়েছি। এখান থেকে কিছুটা হলেও মানুষ সহযোগীতা পাচ্ছেন উপকৃত হচ্ছেন।
গত বছরেও আমরা প্রায় ৮ মাস করোনা সচেতনতায় হাতধোয়া কর্মসূচী, স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণসহ বিভিন্ন ত্রান বিতরন করেছি। আমাদের এ কাজে অনেকেই আন্তরিকতার সাথে সহযোগীতা করছে।