অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শনিবার, ১৭ই এপ্রিল ২০২১ | ৪ঠা বৈশাখ ১৪২৮


ভোলায় বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের নিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উদযাপন


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮ই মার্চ ২০২১ রাত ১২:৩৫

remove_red_eye

৭২

বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক  \  ভোলায় বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের নিয়ে কেক কেটে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এর ১০১ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করা হয়। বুধবার (১৭ মার্চ বিকালে) ভোলা চিলড্রেন স্পেশাল স্কুলের বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের নিয়ে এই আনন্দ উদযাপন করেন বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা।  
ভোলা চিলড্রেন স্পেশাল স্কুল ক্যাম্পাসে ‘বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’ ভোলা জেলার আয়োজনে  বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের সংগীত পরিবেশনা, কেক কাটা ও আলোচনা সভার মধ্যদিয়ে দিবসটি পালিত হয়েছে।
‘বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’ ভোলা জেলা শাখার  সাধারন সম্পাদক ও চ্যানেল-২৪ এর জেলা প্রতিনিধি আদিল হোসেন তপুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ ইউনুছ।
 বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,  আজকের ভোলার সম্পাদক আলহাজ্ব মুহাম্মদ শওকাত হোসেন,  ভোলা রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটেরে সেক্রেটারী মো: আজিজুল ইসলাম,ওবায়েদুল হক বাবুল মোল্লা মহাবিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক জিনাত রেহানা, ভোলা লেডিস ক্লাবের সম্পাদিকা খাদিজা আক্তার  স্বপ্না, ‘বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’ ভোলা জেলা শাখার সভাপতি গালিব ইবনে ফেরদাউস, ভোলা চিলড্রেন স্পেশাল স্কুলের পরিচালক জাকির হোসেন।
‘বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’ ভোলা জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ইভান তালুকদারের সঞ্চালনায় এসময় আরও বক্তব্য রাখেন, বাল্যবিয়ে ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি, ভোলার সাধারন সম্পাদক এম শাহরিয়ার জিলন, ভোলা ট্যুরিস ক্লাবের সভাপতি নাহিদ নুসরাত তিশা।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, বাংলা টিভি জেলা প্রতিনিধি জুয়েল সাহা, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ভোলা জেলা যুব ইউনিটের প্রশিক্ষণ বিভাগের প্রধান মোঃ সাদ্দাম হোসেন, চ্যানেল টি-ওয়ানের জেলা প্রতিনিধি ইমতিয়াজুর রহমান, ‘বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা’ ভোলা জেলা শাখার প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আবদুল্লাহ আল নোমান, সদস্য মোঃ আল আমিন প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে ভোলা চিলড্রেন স্পেশাল স্কুলের শিশুরা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বিভিন্ন গান গেয়ে পুরো অনুষ্ঠানকে মনোমুগ্ধ করে রাখেন।
এসময় বক্তারা বলেন, বাঙালী জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে আমরা একটি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ পেতাম না। তিনি আজকের এই দিনে বৃহত্তর ফরিদপুর (বর্তমান গোপালগঞ্জ) জেলার টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। বাংলাদেশের নিপিড়িত মানুষের মুক্তির লক্ষ্যে তিনি আন্দোলন সংগ্রাম করে গেছে। জীবনের অনেকটা সময় তিনি কারাগারে বন্দি ছিলেন। তারপরও বঙ্গবন্ধু বাঙালীর অধিকার আদায়ে আন্দোলন চালিয়ে গেছে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে পশ্চিম পাকিস্তানী শাসক গোষ্ঠীর দীর্ঘ ২৪ বছরের শোষণ নিপিড়নের বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন করে ১৯৭১ সালে ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য দিয়ে পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ নামে স্বাধীন দেশের জন্ম হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সারাজীবন মানুষের জন্য নিরলসভাবে কাজ করেছেন। শিশুদেরকে বঙ্গবন্ধু খুব ভালোবাসতে তাই তার জন্মদিনটি তিনি শিশুদের উৎসর্গ করেছেন। আজকের দিনটি জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে উদযাপন করা হয়। আমরা বঙ্গবন্ধুর জীবনী সম্পর্কে বেশি বেশি জানার চেষ্টা করবো। বঙ্গবন্ধুর জীবনী জানতে পারলেই আমরা স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস জানতে পারবো।