অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, মঙ্গলবার, ৭ই ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ২৫শে মাঘ ১৪২৯


চরফ্যাশনে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে জমি দখলের অপ-প্রচারের অভিযোগ


চরফ্যাসন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৭ই জানুয়ারী ২০২৩ রাত ০৯:৩৫

remove_red_eye

২৪

চরফ্যাশন প্রতিনিধি: চরফ্যাশনে চরমানিকা ইউনিয়নে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে জমি দখলের অপ-প্রচারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার মাদ্রাসা শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেছেন।
মাদ্রাসা শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন অভিযোগ করেন, চর আইচা মৌজার ৫৫০নম্বর খতিয়ানে ২০২১সনে তিনি সত্তার থেকে ৩১ শতাংশ জমি খরিদ করে ভোগ দখলে আছেন। ২০০৩সনে অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক নুরুল আমিন তার পিতা আলমগীর বেপারীর নিকট ২৫ শতাংশ জমি বিক্রি করেন। কিন্তু নুরুল আমিন আলমগীর বেপারীকে তার জমিতে দখল না দিয়ে এওয়াজ বন্টকের মাধ্যমে তার ভাইদের জমিতে দখল দেন। সম্প্রতি তার ভাইরা ঐ জমি থেকে তাদেরকে দখল উচ্ছেদ করায় থানাসহ স্থানীয় শালিসের  সিদ্বান্তে তাদেরকে জমি ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত দেয়া হয়েছে। একারণে তারা নুরুল আমিন থেকে ক্রয়কৃত খতিয়ানের দাগভুক্ত জমিতে অবস্থান নিয়েছেন। কিন্তু শিক্ষক নুরুল আমিন গংরা  সিদ্ধান্ত না মেনে জমি দখলের অভিযোগ তুলে তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছেন। তিনি দাবী করেন, নুরুল আমিন ক্রয়কৃত ৮২শতাংশ জমির বাহিরে আরো ১০শতাংশসহ ৯২শতাংশ জমি ভোগ দখলে রেখেছেন।
অভিযোগের বিষয়ে অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক নুরুল আমিন বলেন, জমি দাতা সাত্তারের খতিয়ানে জমি না থাকলেও চরমানিকার তহসিলদার মারুফ হোসেন  ফরিদ মাস্টারকে ৩১শতাংশ জমির নামজারী খতিয়ান দিয়েছেন। যার বিরুদ্ধে মিসকেইছ চলমান আছে। ফরিদ মাস্টার ওই খতিয়ান পেয়ে আমাদেরকে হয়রানি করছেন।
তহসিলদার মারুফ হোসেন জানান, খতিয়ানটি ভুলবসত হয়েছে। যা বাতিলের প্রস্তাব করা হয়েছে।