অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, মঙ্গলবার, ৭ই ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ২৫শে মাঘ ১৪২৯


চরফ্যাশনে নির্বাচন পরবর্তী  সহিংসতায় আহত অর্ধশত


চরফ্যাসন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৩০শে ডিসেম্বর ২০২২ রাত ১০:২৬

remove_red_eye

৪৯

চরফ্যাশন সংবাদদাতা: ভোলার চরফ্যাশনের নীলকমল, জিন্নাগড়, আমিনাবাদ ইউপিতে নির্বাচন পরবর্তী সংসতায় প্রায় অর্ধশত নেতা কর্মী আহত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভাংচুর হয়েছে বাড়িঘর, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। নীলকমল ইউপির আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আলমগীর হাওলাদার অভিযোগ করেন- নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান (স্বতন্ত্র) ইকবাল হোসেন লিখন এর ভাই টুটুলের নেতৃত্বে তার কর্মী সমর্থকরা নীলকমল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছালাউদ্দিন মাষ্টারসহ নৌকা মার্কার ৭ জন কর্মীর বাড়ি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করেছে এবং মেম্বার প্রার্থী ডা: সাহাবুদ্দিনসহ ৩ জন নৌকা মার্কার সমর্থকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও লুট পাট করেছে। হামলায় ৬/৭ জন নেতা কর্মী আহত হয়েছেন।
জিন্নাগড় ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের পরাজিত মেম্বার প্রার্থী সুমনের স্ত্রী লিপু আকতার অভিযোগ করেন বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮ টার সময় সময় বিজয়ী প্রার্থী আবু জাহেরের ভাই বশিরের নেতৃত্বে তাদের কর্মীরা হামলা চালিয়ে বাড়ি ঘর ভাংচুর, লুটপাট করেছে। এসয় তাদের হামলায় মেম্বার প্রার্থী সুমন, রাসেল, রিয়াজ, মাকসুদ, আসমা, মুসফিকা, রাশেদা, জাহিদুল গুরতর আহত হয়ে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছেন। এ প্রসংগে নির্বাচিত মেম্বার জাহেরের ভাই বশির বলেন, বিজয় মিছিল নিয়ে যাওয়ার পথে পরাজিত প্রার্থী সুমনের সমর্থকরা হামলা করে বশির, শামীম, সুজন, সজিবকে আহত করে।
আমিনাবাদ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড, নির্বাচিত মেম্বার আক্তার হোসেন এর সমর্থক রাহিমা, খাদিজা, আলামিন, সোহাগ, আমিরুজ্জান, ইয়াদ মহাজন, সুমন, নারগিছ নামের ৮ জনকে পরাজিত প্রার্থী ফাহাদের কর্মীরা হামলা করেন। এ ঘটনায় ফাহাদসহ দুইজনকে চরফ্যাশন থানা পুলিশ আটক করেছেন।