অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২২শে মে ২০২২ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯


ভোলা সরকারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা মহিলা কলেজে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭ই মার্চ ২০২২ রাত ১০:৪৮

remove_red_eye

১২৭

বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক : ভোলা সরকারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা মহিলা কলেজে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপন করা হয়েছে।
 ১৭ মার্চ বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে  ভোলা সরকারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা  মহিলা কলেজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস ২০২২ উদযাপন করেছে। পরে সকাল সাড়ে ১০ টায় কলেজ একাডেমিক ভবনে দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক আব্দুল আউয়াল মোঃ হারুনুর রশিদের সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও শিশু দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন সরকারি শেখ ফজিলাতুন্নেছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ ইসরাফিল। প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রফেসর মোঃ ইসরাফিল বাংলাদেশ স্বাধীনতার পিছনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মত্যাগ এর কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইতিহাসের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র তার আত্মত্যাগ এর বিনিময়ে আজকে আমরা আমাদের স্বাধীনতা পেয়েছি। এ সময় তিনি ছাত্র জীবন বঙ্গবন্ধু কারাবরণ,৬৯ এর আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা,সত্তরের নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর সাফল্যর ফলাফল এবং ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের ব্যাখ্যা প্রদান করেন।  বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শেখ ফজিলাতুন্নেছা মহিলা সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ এটিএম রেজাউল করিম। বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো বক্তব্য রাখেন শেখ ফজিলাতুন্নেছা মহিলা সরকারি কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক হুমায়ুন কবির। বিশেষ অতিথির বক্তব্য তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ আর বাংলাদেশ মানেই বঙ্গবন্ধু।  বঙ্গবন্ধু স্বপ্ন দেখিয়েছেন স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করেছে।
আজ গভীরভাবে আমরা তাকে স্মরণ করছি এসময় তিনি ১৫ ই আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারকে যারা হত্যা করেছে তাদেরকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান। সভাপতির বক্তব্যে আব্দুল আউয়াল মোঃ হারুন-অর-রশিদ বলেন,স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্যেই আজকে আমরা আমাদের স্বাধীনতা পেয়েছি। এসময় তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে সকলের কাছে দোয়া চান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইব্রাহিম শামীম,ফাতেমা বেগম,এম এ হালিম,মোঃ বেল্লাল হোসাইন,ফরিদুজ্জামান প্রমুখ।