অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২২শে মে ২০২২ | ৮ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯


বুস্টার ডোজে নয় হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু দাবী করলেন সিভিল সার্জন


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫ই মার্চ ২০২২ রাত ১১:২৫

remove_red_eye

৫১

 ভোলার ভেলুমিয়ার পল্লী বিদ্যুত অফিসের লাইন টেকনিশিয়ান মোঃ শাহজালাল   মঙ্গলবার বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে বুষ্টার টিকা নেয়ার কিছু পর  হার্ট অ্যাটাকে মারা গেছেন ।  সকাল সাড়ে ১১টায় এমন ঘটনার পর বিষয়টি সোস্যাল মিডিয়ায় কেউ কেউ মৃত্যুর জন্য  বুস্টার ডোজ টিকার প্রতিক্রিয়া উল্লেখ করেন। ভোলার সিভিল সার্জন ডাক্তার কেএম শফিকুজ্জামান তথ্য প্রমানাদি উল্লেখ করে জানান, বুস্টার ডোজ নেয়ার জন্য ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয় নি। সকাল ১১টায় ওই ব্যক্তি তার স্ত্রী ও সন্তানসহ টিকা নিতে আসেন। টিকা নেয়ার পর মটর সাইকেল যোগে বাজারে কেনাকাটা করতে যান। বাড়ি ফেরার পথে বুকে চাপ ব্যথা অনুভব করেন। তিনি ফের হাসপাতালে আসলে আরএমও ডাক্তার তারেক আহমেদ, ডাক্তার সিফাতউল্লাহ, ডাক্তার ইমরান , ডাঃ দুলালের উপস্থিতিতে পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হয়। ওই সময় তার পেশার ছিল ১৮০/১৪০। ৫ দিন আগে শাহজালাল বুকে ব্যথা নিয়ে ওই হাসপাতালে এসে ছিলেন। ওই দিন তাকে কর্তব্যরত ডাক্তার হার্টের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দেখানোর জন্য উপদেশ দেন। কিন্তু ব্যস্ততার জন্য তিনি হার্টের ডাক্তার দেখানোর সময় পান নি বলে জানান। গেল সপ্তাহে শাহজালাল বোরহানউদ্দিন থেকে বদলী হয়ে ভোলা জেলা সদরের ভেলুমিয়া ইউনিয়নে লাইন টেকনিশিয়ান হিসেবে যোগদান করেন।  হাসপাতালে কর্তব্যরত ডাক্তারদের এমন তথ্য জানানোর কিছু পরেই তিনি মেঝেতে লুটিয়ে পড়েন। এভাবেই তার মৃত্যু হয়। এদিকে পল্লী বিদ্যুতের জিএম মোঃ আলতাফ হোসেন জানান, শাহাজালালের বয়স ৪৫ বছর। ১৫ দিন আগে  তার একটি মাইনর স্টোক হয়ে ছিল। মঙ্গলবার টিকা নেয়ার পর তিনি স্বাভাবিকই ছিলেন। পরে ফের স্ট্রোক করায় মারা যান। তার গ্রামের বাড়ি চুয়াডাঙ্গা জেলায় । মঙ্গলবার বিকালেই তার মরদেহ বাড়ি পাঠানো  হয়। তার পরিবারের পক্ষ থেকেও কোন অভিযোগ ছিল না । অপরদিকে সিভিল সার্জন আরো জানান, শাহজালালকে যে টিকা দেয়া হয়েছে, ওই টিকার মেয়াদ উত্তীর্নের শেষ রয়েছে  চলতি বছরের সেপ্টম্বর মাস পর্যন্ত । তাই বুস্টার টিকা ডোজের কোন প্রভাব ছিল না।