অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারী ২০২২ | ৫ই মাঘ ১৪২৮


তজুমদ্দিনের সোনাপুরে মেম্বার প্রার্থী মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে ত্রাস সৃষ্টির পাঁয়তারার অভিযোগ


তজুমদ্দিন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১২ই ডিসেম্বর ২০২১ রাত ০৯:৫২

remove_red_eye

৫৯



তজুমদ্দিন প্রতিনিধি :  চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তজুমদ্দিন উপজেলার ২ং সোনাপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী শাহ মোঃ মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে ত্রাস সৃষ্টির পাঁয়তারার অভিযোগ করেছেন প্রতিদ্ব›িদ্ব প্রার্থী।
আচরণবিধি লংঘন করে মিছিল মহড়া মারামারি বাড়িঘরে হামলা ও হয়রানির অভিযোগে থানা পুলিশ এবং নির্বাচন অফিসে দেওয়া পাল্টাপাল্টি অভিযোগে ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়াও ওই মেম্বার প্রার্থীর ছেলের বিরুদ্ধে রয়েছে গুরুতর অভিযোগ।  
সোনাপুর ইউনিয়নে ৯জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মেহেদী হাসান মিশু বিনাপ্রতিদ্ব›িদ্বতায় নির্বাচিত হন। চেয়ারম্যান পদে ভোট না থাকায় ভোটাররা পছন্দমত  মেম্বার নির্বাচনের ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। পাড়া-মহল্লায় জমে উঠেছে ভোটের আমেজ ।
এদিকে পূর্বে বিতর্কিত কিছু ব্যক্তি মেম্বার প্রার্থী হয়ে প্রভাব বিস্তারে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। মেম্বার প্রার্থী মোঃ সবুজ মাতাব্বরের অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী (নলকূপ মার্কা) শাহ মোঃ মহিউদ্দিন বহিরাগত ও জেলে ছদ্দবেশী জলদস্যুদের সহযোগিতায়  এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে চলছেন।
ক্ষমতার অপব্যবহার করে মোরগ মার্কার সমর্থকদের মারপিট ও বাড়িঘরে হামলা করেছে এমন  অভিযোগ অস্বীকার করে শাহ মোঃ মহিউদ্দিন পাল্টা অভিযোগ করেন।
তজুমদ্দিন থানা অফিসার ইনচার্জ এস এম জিয়াউল হক বলেন ৬নং ওয়ার্ডে মারামারির ঘটনা তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা গাজী আমির খসরু বলেন পাল্টাপাল্টি দুটি অভিযোগ পেয়েছি আচরণবিধি লংঘন হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।