অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, সোমবার, ১লা জুন ২০২০ | ১৮ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭


চরফ্যাসনের ভন্ড মজিদের গ্রেফতারের দাবিতে স্মারক লিপি প্রদান


বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৭শে আগস্ট ২০১৯ রাত ১১:১৯

remove_red_eye

২৯

বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক : চরফ্যাশনের তথা কথিত কলেমার জামাতের আমির ভন্ড আবদুল মজিদ ওরফে মজিদ প্রফেসার কে গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে ভোলা জেলা প্রশাসক ও ভোলা জেলা পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলীপি প্রদান করেছে ভোলা জেলা ইমান আক্বিদা সংরক্ষন কমিটি ।
মঙ্গলবার দুপুরে ইমান আক্বিদা সংরক্ষন ও অনৈসলামিক কার্যকলাপ প্রতিরোধ কমিটির পক্ষ থেকে সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মাও: তরিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ভোলা জেলা প্রশাসক ও ভোলা জেলার পুলিশ সুপার বরাবর এই স্মারকলিপি প্রেরন করা হয় ।
স্মারকলিপিতে ইমান আক্বিদা সংরক্ষন কমিটি জানান , চরফ্যাসনের কুলসুমবাগে বাসিন্দা প্রফেসর আবদুল মজিদ নামে এক বেক্তি ২০ বছর ধরে সাধারন মুসলমানদের সমবেত করে ধর্মের নামে কিছু বানোয়াট ও ভিত্তিহিন তথ্য প্রকাশ করার পাশাপাশি কোরআন হাদিসের অপব্যখ্যা করে মুসলমানের ইমান ও আকিদা ধ্বংষ করছে। ভন্ড আবদুল মজিদ নিজেকে আল্লাহ দাবি করেন , নবী দাবী করেন , এমনকি নিজেকে ইমাম মাহদীও দাবি করেন। এর পাশাপাশি তার ৮ বছরের ছেলে ফজলে রাব্বিকে ইসা(আ:) দাবী করেন। এছারা নিজ আস্তানায় মুরিদের র্ধমিয় শিক্ষা প্রদানের নামে মগজ ধোলাই করে মুরিদের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি দখল করে নিজের নামে সম্পদের পাহার গড়ে তুলেছেন। এর পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন স্থানের অপরাধিদের তার দরবারে আশ্রয় প্রদান করছে এবং তাদের সাহায্যে একটি ক্যাডার বাহিনি গড়ে তুলছেন। তার অধিনস্থ মুরিদের মধ্যে বাল্য বিবাহ ,বিবাহ বিচ্ছেদ ও রেজিস্ট্রেশন বিহিন বিয়ে প্রবর্তন করা সহ শিশুদের বাধ্যতামুলক যে কোন শিক্ষা বিমুখ রাখার পাশাপাশি বিভিন্ন অসামাজিক , মধ্য যুগিয় আমলের আচার আচরন পালনের মাধ্যমে মৌলিক অধিকার হরন করছে। যা ধর্ম, সমাজ ও রাষ্ট্রবিরোধী ।
আবদুল মজিদের ভন্ডামি নিয়ে চ্যানেল ২৪ এর অনুসন্ধানি রির্পোট সার্চলাইটে ধারাবাহিক প্রতিবেদ প্রচার সহ দেশের বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় নিউজ প্রকাশের মাধ্যমে আবদুল মজিদের ভন্ডামির মুখোশ উন্মোচন করেছে। যার কারনে চরফ্যাসন সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্মপ্রান মুসল্লিরা আবদুল মজিদের বিরুদ্ধে মিছিল, মানববন্ধন করেছে। বর্তমানে কয়েকদিন যাবত চরফ্যাসনে বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর ফলে যে কোন সময়ে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে।
তাই এমত অবস্থায় ভন্ড আবদুল মজিদের পরিচালিত কলেমার জমাতের আস্তানা , সারা দেশে এই কলেমার জমাত বন্ধ করে আবদুল মজিদকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তারা ।
এ সময় মাও: ইব্রাহিম খলিল , মো: রফিকুল ইসলাম সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন ।




আজকের সাহরীর ও ইফতারে সময় সূচী ভোলা জেলার জন্য