অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২৫শে জুলাই ২০২১ | ১০ই শ্রাবণ ১৪২৮


চুলার মাটি খুঁড়তেই বেরিয়ে এলো ৫০টি গোখরা সাপের বাচ্চা


বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৫শে জুন ২০২১ সন্ধ্যা ০৭:৫২

remove_red_eye

৬৩

বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক : মাঝেমধ্যে ঘরে রাখা ডিম উধাও, এমনকি মুরগীর বাচ্চাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। তাতেই সন্দেহ হয় গৃহকর্তার। পরে চুলার মাটি খুঁড়ে উদ্ধার করা হয় ৫০টি সাপের বাচ্চা। ধারনা করা হচ্ছে, এগুলো গোখরা সাপের বাচ্চা।

শুক্রবার বিকালে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার দাসেরহাট গ্রামের পাট ব্যবসায়ী শওকত সেখের বাড়ির রান্নাঘরে চুলার নিচের মাটি খুঁড়ে সাপের বাচ্চাগুলো উদ্ধার করা হয়।

শওকত সেখ জানান, বেশ কিছুদিন ধরে রান্না ঘরে রাখা ডিম, পালন করা মুরগীর বাচ্চা উধাও হয়ে যাচ্ছিল। পরে বৃহস্পতিবার একটি মুরগী মরা অবস্থায় পাওয়া গেলে ঘরে সাপ রয়েছে- এমন ধারনা হয় আমাদের।

শুক্রবার সকালে কাশিয়ানী উপজেলার গাড়লগাতী গ্রামের সাপুড়ে বিল্লাল মিয়াকে খরর দেই। পরে বিল্লাল মিয়া বাড়িতে এসে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করে রান্নাঘরের চুলার নিচের মাটি খুঁড়ে একে একে ৫০টি গোখরা সাপের বাচ্চা উদ্ধার করে। তবে বড় ধরনের কোনো সাপ উদ্ধার করা যায়নি। ধারনা করা হচ্ছে, বড় আরো দুইটি সাপ রয়েছে।

সাপুড়ে বিল্লাল মিয়া বলেন, এখানে বড় দু’টি সাপ রয়েছে। সেই সাপ দু’টিকে খুঁজে বের করে ধরার চেষ্টা করছি।

সাপ দেখতে আসা নুরু গাজী, রমজান মোল্যা ও প্রকাশ বিশ্বাস বলেন, আমাদের গ্রামে কখনো একসাথে এতো সাপ দেখা যায়নি। আজ শওকত সেখের বাসা থেকে একসাথে এতগুলো সাপ উদ্ধার করা হলো। হয়তো বর্ষার কারণে বড় সাপ দু’টি ঘরের মধ্যে ডিম পেড়ে বাচ্চা ফুটিয়েছে। আমরা এখন আতঙ্কে রয়েছি।