অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শনিবার, ২৪শে জুলাই ২০২১ | ৯ই শ্রাবণ ১৪২৮


মা-বাবা-বোন খুনের আসামি মেহজাবিনের স্বীকারোক্তি


বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৪শে জুন ২০২১ রাত ০৮:৫৭

remove_red_eye

৬০

 
 
 
 

চার দিন হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদের পর বৃহস্পতিবার মেহজবিনকে ঢাকার আদালতে নিয়ে যান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কদমতলী থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জাকির হোসাইন।

 

১৬৪ ধারায় মেহজাবিনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিতে আদালতে আবেদন করেন তিনি।

এরপর ঢাকার মহানগর হাকিম বেগম ইয়াসমিন আরার তার খাস কামরায় মেহজাবিনের জবানবন্দি নেন।

জবানবন্দি নেওয়ার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয় বলে ঢাকার মহানগর পুলিশের অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপ-কমিশনার মো. জাফর হোসেন জানিয়েছেন।

এই মামলার আসামি মেহজাবিনের স্বামী শফিকুল ইসলাম এখনও পুলিশ রিমান্ডে রয়েছেন।

মেহজাবিন (২৪) ঘটনার দিনই বাবা মাসুদ রানা (৫০), মা মৌসুমী আক্তার (৪৫) এবং বোন জান্নাতুলকে (২০) হত্যার কথা স্বীকার করেন বলে পুলিশ জানিয়েছিল।

কদমতলী থানাধীন জুরাইনের মুরাদপুরে প্রবাসী মাসুদ রানার বাড়িতে গত শনিবার অচেতন অবস্থায় শফিকুল ও তার শিশুসন্তানকে উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া মাসুদ রানা, মৌসুমী ও জান্নাতুলকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাদের শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছিল।

পুলিশ বলছে, পরিবারের প্রতি ক্ষোভ থেকে মা-বাবা-বোনকে অচেতন করে শ্বাসরোধে হত্যার পর মেহজাবিন নিজেই ৯৯৯ এ ফোন করেন।

অন্যদিকে মাসুদের ভাই সাখাওয়াত হোসেন পরে মেহজাবিন ও তার স্বামী শফিকুলকে আসামি করে মামলা করেন। হত্যাকাণ্ডে তিনি স্ত্রীকে সহযোগিতা করেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।