অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শুক্রবার, ১৮ই জুন ২০২১ | ৪ঠা আষাঢ় ১৪২৮


প্রাথমিকে পদোন্নতি পিএসসির মাধ্যমে


বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮ই জুন ২০২১ রাত ০৮:৫৪

remove_red_eye

২৮

 

বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের পদোন্নতি সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) মাধ্যমে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম। মঙ্গলবার বাংলাদেশ জার্নালকে তিনি এ তথ্য জানান।

আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, ‘এখন থেকে প্রাথমিকের কোনো প্রধান শিক্ষককে চলতি দায়িত্ব দেয়া হবে না। পদোন্নতির মাধ্যমেই করা হবে। সহকারী শিক্ষকদের জ্যেষ্ঠ তালিকা যাচাই-বাছাই করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে শিক্ষকদের তথ্য পিএসসিতে পাঠাবে। পিএসসি সুপারিশ করলে অধিদপ্তর পদোন্নতির আদেশ জারি করবে।’

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘প্রধান শিক্ষক পদ দ্বিতীয় শ্রেণির হওয়ায় পিএসসির সুপারিশ লাগবে। তাছাড়া পদোন্নতি হবে না।’

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি দিতে অনুমোদন দেয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এরপর দুই দফা সহকারী শিক্ষকদের সম্মিলিত জ্যেষ্ঠ তালিকা তৈরির নির্দেশ দেয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। সর্বশেষ গত ২৭ মে জেলা ও উপজেলা/থানা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারদের তালিকা তৈরি করে ই-মেইলে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে আরো জানা যায়, চাকরি সন্তোষজনক, বিভাগীয় মামলা না থাকলে এবং এসিআরে (বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন) বিরূপ মন্তব্য না হলে তারা পদোন্নতির জন্য যোগ্য বিবেচিত হবেন। সম্মিলিত জ্যেষ্ঠ তালিকা ধরে এই যাচাই-বাছাই করে ডিপিই থেকে তালিকা পাঠানো হবে। পদটি দ্বিতীয় শ্রেণির হওয়ায় পিএসসির সুপারিশ প্রয়োজন হবে। অধিদপ্তরের সুপারিশ অনুযায়ী পিএসসি সহকারী শিক্ষকদের তথ্য যাচাই-বাছাই করে প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতির জন্য সুপারিশ করবে। এক্ষেত্রে পিএসসি কোনও পরীক্ষার আয়োজন করবে না।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আবু বকর সিদ্দিক বাংলাদেশ জার্নালকে বলেন, ‘পদোন্নতির বিষয়টি অধিদপ্তর দেখছে।’