অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, বুধবার, ২১শে এপ্রিল ২০২১ | ৮ই বৈশাখ ১৪২৮


দৌলতখানে দেবরের পিটুনিতে ভাবী হাসপাতালে ভর্তি


দৌলতখান প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৩০শে মার্চ ২০২১ রাত ১০:০৩

remove_red_eye

৬৭


দৌলতখান প্রতিনিধি : জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ভোলার দৌলতখানে খায়রুন (৩০) নামের এক গৃহবধূকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্তরা হলেন, আপন দেবর নুরে আলম ও তার স্ত্রী ফাহিমা। আহত খায়রুন দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। সোমবার রাত সাড়ে দশটায় উপজেলার চরপাতা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় খায়রুন বাদী হয়ে দৌলতখান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের পর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) স্বরূপ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। স্বরূপ জানান, এঘটনায় অভিযোগ পাওয়া গেছে, তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খায়রুন জানান, দীর্ঘদিন ধরে নুরে আলম অসহায়ত্ব জীবন-যাপন করে আসছে। তার শ^শুড় আবদুল খালেক সরকারিভাবে একটি ঘর বরাদ্দ পান। ঘরটি তিনি না নিয়ে নুরে আলমকে দিয়ে দেন। নুরে আলমের যায়গা না থাকায় ঘরটি খায়রুনের জমিতে উত্তোলন করেন। এ জমিকে কেন্দ্র করে সোমবার রাতে নুরে আলমের স্ত্রী ফাহিমার সাথে তার বাকবিতÐা হয়। বাকবিতÐাকে কেন্দ্র নুরে আলম ও তার স্ত্রী ফাহিমা তাকে বেধড়ক মারধর করে। এতে করে খায়রুনের শরীরের বিভিন্নস্থানে পুলা জখম হয়ে যায়। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে দৌলতখান হাসপাতালে এনে ভর্তি করান।
অন্যদিকে ফাহিমা জানান, আমরা তাকে মারধর করেনি। উল্টো খায়রুন  নুরে আলমকে মারধর করেছে।