অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, বুধবার, ২১শে এপ্রিল ২০২১ | ৮ই বৈশাখ ১৪২৮


প্রেমের বলি হলেন লালমোহনের ১৪ বছরের এক কিশোরী


লালমোহন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৮ই মার্চ ২০২১ রাত ০৯:৫৪

remove_red_eye

১৮৪

লালমোহন প্রতিনিধি \ প্রেমের বলি হলেন লালমোহনের ১৪ বছরের এক কিশোরী। ঘর ছেরে পালিয়ে ছিলেন এক সপ্তাহ আগে। আবার ফিরেও আসেন। অবশেষে বৃহস্পতিবার আত্মহত্যা করে লালমোহন চরভূতা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের বালুরচরা বাড়ির কিশোরী শাহনুর। তার বাবার নাম এসলাম। বেলা ২টায় নিজ বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে কিভাবে কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে তার কোন কারণ খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
লালমোহন থানার অফিসার ইনচার্জ মাকসুদুর রহমান মুরাদ জানান, কিশোরী শাহনুরের মৃত্যুর কোন কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। শরীরে কোন আঘাতও পাওয়া যায়নি। হয়তো সে কিছু খেয়ে আত্মহত্যা করতে পারে। ময়নাতদন্ত করলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। কিশোরীর পরিবার থেকে কোন অভিযোগ দেয়া হয়নি।
অন্যদিকে ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আকতারুজ্জামান টিটব জানান, তোয়ালে দিয়ে সে গলায় ফাঁস দিয়েছে। বয়স কম হওয়ায় মোবাইলের যুগে সে হয়তো কারো সাথে সম্পর্ক করেছে। যার কারণে আত্মহত্যা করে।
এদিকে কিশোরী শাহনুরের মৃত্যুর কারণ নিয়ে এলাকায় নানা আলোচনা চলছে। একই এলাকার ইউসুফ আলীর ছেলে সুজা কিছুদিন আগে তাকে নিয়ে পালিয়ে যায় বলে এলাকার একটি সূত্র জানায়। সুজা কয়েক মাস আগে মারজিয়া বেগম নামে আরেক মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে যায়। ওই ঘটনায় মামলা হলে পরে মিমাংসা হয়। সে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত হয়ে জেল খাটে বলেও অভিযোগ রয়েছে। তবে ইউপি চেয়ারম্যান জানান, শারমিন সুজার সাথে পালায়নি। কার সাথে পালিয়েছে তা জানা যায়নি।