অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, সোমবার, ৩০শে নভেম্বর ২০২০ | ১৫ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭


মনপুরায় অ্যাক্রোবেটিক শো দেখে মুগ্ধ বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক


মনপুরা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৯শে নভেম্বর ২০২০ সন্ধ্যা ০৭:৫৬

remove_red_eye

১৩৫

ঘর ও নগদ অর্থ  পেলো হতদরিদ্র ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী


মনপুরা  প্রতিনিধি : ভোলার মনপুরায় ঘরে বসে ইউটিউব দেখে অ্যাক্রোবেটিক কৌশল রপ্ত করে উত্তর চর ফৈজুদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া। ধীরে ধীরে অ্যাক্রোবেট বিভিন্ন কৌশল শিখে নেন সুমাইয়া। পরে মনপুরা শিল্পকলা একাডেমীর সুমাইয়াকে অ্যাক্রোবেটিক রপ্ত করার সহযোগিতা করেন।

বুধবার রাতে ডাকবাংলো হলরুমে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকের সামনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শন করেন হতদরিদ্র ছাত্রী সুমাইয়া। এতে খুশি হয়ে বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকার একটি ঘর ও জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিক ২০ হাজার টাকা পুরুস্কার ঘোষনা করেন। এদিকে সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানে অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনে কোন পোশাক ছিল না হতদরিদ্র সুমাইয়ার। পরে ভারপ্রাপ্ত ইউএনওর সহযোগিতায় পোশাকের ব্যবস্থা হলে অ্যাক্রোবেটিক শো দেখান ওই ছাত্রী।
বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় ভারপ্রাপ্ত ইউএনও সেলিম মিয়া হত দরিদ্র সুমাইয়ার চরফৈজুদ্দিন ৭ নং ওয়ার্ডের বাড়িতে গিয়ে জেলা প্রশাসকের নগদ ২০ হাজার টাকা তুলে দেন। এছাড়া বিভাগীয় কমিশনারের ঘোষিত ঘর দ্রæত সময়ে দেওয়া হবে জানান ইউএনও।

এই সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সুমাইয়ার পঙ্গু বাবা মোঃ আলাউদ্দিন, উপজেলা চেয়ারম্যান শেলিনা আকতার চৌধুরী, হাজিরহাট ইউপি চেয়ারম্যান শাহরিয়ার চৌধুরী দীপক, ইউপি চেয়ারম্যান আমানত উল্লা আলমগীর ও শিল্প কলা একাডেমির পরিচালক জুড়ান মজুমদার।