অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, বুধবার, ২৫শে নভেম্বর ২০২০ | ১১ই অগ্রহায়ণ ১৪২৭


চরফ্যাসনে ভূয়া সনদে বাল্যবিয়ের আয়োজন, বরের মায়ের কারাদণ্ড


চরফ্যাসন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৪ই নভেম্বর ২০২০ রাত ০৯:৫৩

remove_red_eye

১৩

বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক : ভোলায় এক স্কুল পড়ুয়া (১৩) বছরের ছাত্রীকে ভূয়া জন্ম নিবন্ধন সনদ ব্যবহার করে বাল্য বিয়ের প্রস্তুতিকালে নাজমা বেগম (৪৫) নামে এক বরের মাকে এক বছরের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়াও এ বিয়ের সহযোগীতা করার জন্য আব্দুল আল নোমান (২৬) নামে এক যুবকের ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন চরফ্যাশন উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃ রুহুল আমিন।
সাজাপ্রাপ্তরা নাজমা বেগম ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার আমেনাবাদ ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের কুসুমবাগ গ্রামের মোঃ হারুনের স্ত্রী এবং আব্দুল আল নোমান একই উপজেলার ওসমানগঞ্জ ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা।
শুক্রবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার আমিনাবাদ ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের কুলসুমবাগ গ্রামের চৌকিদার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
চরফ্যাশন উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃ রুহুল আমিন জানান, শুক্রবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমরা ওই বাড়িতে যাই। এসময় ভূয়া জন্মসনদ পত্র দিয়ে এক  মেয়ের বাল্য বিয়ে দেওয়ার প্রস্তুতিকালে আমরা বরের মা ও বাল্য বিয়ের সহযোগীকে আটক করি। এছাড়াও বাকীরা পালিয়ে যায়। পরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বরের মা নাজমা বেগমকে এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও সহযোগী আব্দুল আল নোমানকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।