অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শুক্রবার, ৩০শে অক্টোবর ২০২০ | ১৫ই কার্তিক ১৪২৭


চরফ্যাশনের অন্ত:সত্ত্বা গৃহবধূকে শশুর বাড়িতে নির্যাতন


চরফ্যাসন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১০ই অক্টোবর ২০২০ রাত ১০:৩১

remove_red_eye

৭৮



এআর সোহেব চৌধুরী, চরফ্যাশন থেকে : দেবর,নন্দেয়া,শাশুড়ি ও ননদের ছেলে কর্তৃক গৃহবধুকে স্বশুর বাড়ির লোকজন কর্তৃক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। চরফ্যাশন উপজেলার হাজারীগঞ্জ ইউনিয়নের চর ফকিরা গ্রামের বাসিন্দা তাজুল ইসলামের মেয়ে জান্নাতের বিয়ে হয় ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলার শম্ভুপুর ১নং ওয়ার্ডের আবুল কাশেম মাঝির ছেলে ফিরোজের সাথে।
স্বামী নদীতে থাকায় অন্তসত্বা স্ত্রী জান্নাত বাজার থেকে ননদ রইজলের রিকশায় করে বাড়িতে আসায় নন্দেয়া জাহানারা ভাইয়ের স্ত্রী জান্নাতকে সন্দেহ পূর্বক বিভিন্নভাবে জেরা করে। এক পর্যায়ে বাদ বিবাদে জড়িয়ে পড়ে মারধর করে। এঘটনা ঘটে গত ৪অক্টোবর রবিবার রাতে স্বামী ফিরোজদের মাঝি বাড়িতে। পরদিন সোমবার সকালেও জাহানারা ভাইয়ের স্ত্রী জান্নাতের সঙ্গে ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত হয়।
এসময় জান্নাতের দেবর শাকিল, শ্বাশুরি কুলসুম বেগম,নন্দেয়া জাহানারা ও তার ছেলে সোহাগসহ এলোপাথারি মারধর করে আহত করে বলে অভিযোগ করেন চরফ্যাশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জান্নাত বেগম।  তিনি আরও জানান, ঘটনার ৩দিন পর গত ৭ অক্টোবর খবর শুনে চরফ্যাশন থেকে আমার তিন ভাই ও বোন আমাকে উদ্ধার করতে আমার শশুর বাড়ি আসলে ওই এলাকার সড়কে তাদেরকে লাঠিসোটা দিয়ে মারধর ও দেশিও দা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে নগদ টাকা পয়সাসহ একটি এন্ড্রোয়েড মোবাইল ফোন নিয়ে যায় তারা।


এসময় জান্নাতসহ ৫ জন আহত হয় বলে সূত্রে জানা যায়। আহতরা হলেন, চরফ্যাশন হাজারিগঞ্জ ইউনিয়নের চরফকিরা ৫নং ওয়ার্ডের তাজুল ইসলাম মিয়ার ছেলে সালাউদ্দিন (৪২) আলাউদ্দিন (৪৫) ফাতেমা (৪৩) ও মোসলেহউদ্দিন (৩৮)। এসময় স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে চরফ্যাশন পাঠালে তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হন। এবিষয়ে তজুমদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।