অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৫ই আশ্বিন ১৪২৭


বোরহানউদ্দিনে ছাগল বাঁধাকে কেন্দ্র করে হামলা মারধর


দৌলতখান প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৬ই সেপ্টেম্বর ২০২০ রাত ১০:০৬

remove_red_eye

৬১



 
দৌলতখান প্রতিনিধি: ভোলার বোরহানউদ্দিনে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচজনকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহতরা হলো,শারীরিক প্রতিবন্ধী ফরমুজল হক(৬৫) তার স্ত্রী তাসলিমা(৪২) ছেলে রাজিব(১৮),মেয়ে উম্মে হাবিবা(২৫) ও নাতি ওসমান (১০মাস)। উম্মে হাবিবা ও শিশু ওসমান প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বাকীরা দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। একই পরিবারের পাঁচজনকে মারধরের ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার উপজেলার বড় মানিকা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাটামারা গ্রামের আদর্শ বাজার সংলগ্ন এলাকার তালুকদার বাড়িতে।

এ ঘটনায় ফরমুজল হক বাদী হয়ে বোরহানউদ্দিন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের পর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) স্বপন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

রবিবার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত ফরমুজল হক সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার সকালে তার মেয়ে হাবিবা বাড়ির উঠানের গাছের সাথে একটি ছাগল বাঁধে। ছাগল বাঁধাকে কেন্দ্র করে একই বাড়ির নিরবের সঙ্গে হাবিবার বাকবিতÐা হয়। বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে নিরব হাবিবাকে মারধর করে। বিষয়টি টের পেয়ে হাবিবার মা তাসলিমা ও বাবা ফরমুজল হক এগিয়ে আসলে তাদেরও মারধর করে। পরবর্তীতে নিরব , বসু বেপারী ও সোহেলসহ দশ থেকে বারোজন একত্রিত হয়ে ফরমুজল হকের পরিবারের লোকজনকে বেধড়ক মারধর করে। এতে করে  ফরমুজল হক ,তার স্ত্রী তাসলিমা, ছেলে রাজিব ,মেয়ে উম্মে হাবিবা ও নাতি ওসমান (১০মাস) গুরুতর জখম হয়। খবর পেয়ে এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে।

সরেজমিনে গেলে এলাকাবাসী জানান,নিরব গংরা এলাকার দুষ্ট প্রকৃতির লোক। এর আগেও নিরবের নেতৃত্বে এধরণের একাধিক ঘটনা ঘটেছে। তবে শিশুসহ একই পরিবারের পাঁচ সদস্যের ওপর হামলা ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন তারা।

এদিকে ঘটনার বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত নিরবের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।  বোরহানউদ্দিন থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল কাদের জানান, এঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।