অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শুক্রবার, ২রা অক্টোবর ২০২০ | ১৬ই আশ্বিন ১৪২৭


বোরহানউদ্দিনে ঔষধ কোম্পানী স্টাফের উপর হামলা, বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট


বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১লা সেপ্টেম্বর ২০২০ রাত ১০:৫৮

remove_red_eye

৪৯০



  বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক : ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার কুঞ্জেরহাট সংলঘœ দালাল বাজার এলাকায় ঔষধ কোম্পানির স্টাফ সেলিম মিয়ার উপর সন্ত্রাসী হামলা এবং তার বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর  জিনের বাদশাদের মূল হোতা আলাম পাটোয়ারি ও জাকিরের সন্ত্রাসী বাহিনী এই হামলা চালিয়েছে বলে সেলিমের স্বজনসহ স্থানীয়রা জানিয়েছেন।
স্থানীয়রা আরও জানায় ওই সন্ত্রাসীদের দৌরাত্ম্যে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি এবং অন্যের বাগানের নারিকেল সুপারি, পুকুরের মাছ নিয়ে যাওয়াসহ বিভিন্ন অন্যায় অপকর্মে জড়িত বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বললেই হামলা মামলার শিকার হতে হয়। বিভিন্ন সময় দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে মহড়া দেয়ার অভিযোগও রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। সন্ত্রাসীদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেনা। সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেয়ায় মঙ্গলবার সন্ধ্যার পরে ছলেমান মিয়ার ছেলে বার্গো ফার্মা নামের ঔষধ কোম্পানির স্টাফ মো: সেলিম কোম্পানির কালেকশন শেষে বাড়ি ফেরার পথে তার উপর হামলা চালায়। আলম পাটোয়ারি, জাকির, কবির, রায়হান ও বাবুলসহ আরও বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোঠা নিয়ে সেলিমকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে রাখে। এ সময় সেলিমের কাছে থাকা নগদ টাকা, মোটরসাইকেলসহ মূল্যবান মালামাল ছিনিয়ে নেয়। তাৎক্ষণিক সন্ত্রাসীদের ভয়ে কেউ এগিয়ে আসেনি। এরপরই ওই সন্ত্রাসী গ্রæপ ছলেমান মিয়ার বাড়িতে হানা দিয়ে তার ঘরে ঢুকে ভাংচুর ও লুটপাট করে এবং মহিলাদেরকে শ্লিলতাহানীর চেষ্টা করে এবং মারধর করে। পরে সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার পর স্থানীয়রা মুমূর্ষু অবস্থায় সেলিমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।
স্থানীয়রা জানায়, সম্প্রতি আলম পাটোয়ারি একদল সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ওই এলাকার বিশিষ্ট সমাজ সেবক আজাদ হাওলাদার এবং ছলেমান মিয়ার বাগানে হানা দেয়। এ সময় সন্ত্রাসীরা ছলেমান মিয়ার বাগানের লক্ষাধিক টাকার গাছ কেটে নিয়ে যায়। এ ছাড়া বাগানের কাঠাল এবং সুপারিও নিয়ে যায়। এতে বাধা দিলে দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোঠা নিয়ে জাকির, কবির, রায়হান, বাবলুর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী ছলেমান মিয়ার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় বাড়িতে পুরুষ কাউকে না পেয়ে মহিলাদেরকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে এবং পার্শ্ববর্তী দালাল বাজারে মহড়া দেয়। বিষয়টি বোরহানউদ্দিন থানায় জানালে পুলিশ পরদিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এ সময় সন্ত্রাসী গ্রæপ গা-ঢাকা দেয়। পুলিশ চলে যাওয়ার পর সন্ত্রাসীরা আবারও বাজারে মহড়া দেয় এবং ছলেমান মিয়া এবং তার ছেলেদেরকে খুঁজতে থাকে। এরই জের ধরে গতকাল মঙ্গলবার ছলেমান মিয়ার ছেলে সেলিমের উপর হামলা করা হয় বলে সেলিমের বাবা জানিয়েছেন।
অপর দিকে দালাল বাজারের একাধিক সুত্র জানায়, কবির ও রায়হান মাদকের ব্যবসার সাথে জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে কবির চায়ের দোকানের আড়ালে ইয়াবা ও গাজার ব্যবসা চালাচ্ছে। এ ছাড়া এরা জিনের বাদশা সেজে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দেশ বিদেশের অসংখ্য মানুষের সাথে প্রতারণা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।
ওই এলাকার বিশিষ্ট সমাজ সেবক আজাদ হাওলাদার জানান, আলম পাটোয়ারি ওই মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী গ্রæপের মূল সেল্টার দাতা। এদেরকে ব্যবহার করে নানান অন্যায় অপকর্ম করান তিনি। মানুষের জমি জবর দখলের চেষ্টা চালায় বলেও অভিযোগ রয়েছে। তিনি আরও জানান, ওই সন্ত্রাসী গ্রুপ ছলেমান মিয়ার বাগান ও বাড়ি জবর দখলের পায়তারা করে ব্যর্থ হয়ে সাংবাদিকদের ভুল বুঝিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকায় অসত্য, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট সংবাদ পরিবেশন করাচ্ছে এবং বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। তিনি প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে এসব অপরাধীর বিচার দাবি করেন।
এদিকে গতকালের হামলার ঘটনায় বোরহানউদ্দিন থানার ওসি মাজহারুল আমিন বিপিএম জানান, সংবাদ পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছেন।