অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, বুধবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১৫ই আশ্বিন ১৪২৭


একজন জনতার ইউএনও ছিলেন জিতেন্দ্র কুমার নাথ


বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৭শে আগস্ট ২০২০ রাত ০৮:৩১

remove_red_eye

১১২

রোমানুল ইসলাম সোহেব: দৌলতখান উপজেলা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে যেখানে কর্তব্য অবহেলা, জনহয়রানির অভিযোগ পেয়েছেন  সেখানেই দৌলতখান উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জিতেন্দ্র কুমার নাথ  ব্যতিক্রম উদ্যোগে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতেন।
 
যিনি  লোভ লালসার উর্ধ্বে উঠে নিজ দৌলতখান উপজেলাকে জনবান্ধব ও বিপদগ্রস্ত মানুষের আশ্রয়স্থল হিসেবে গড়ে তোলেছেন।
 
দৌলতখান উপজেলায় তিনি মাত্র দুই বছর ছয়মাস দায়িত্বে থাকাকালিন   তার সততা ও কর্মদক্ষতায় পাল্টে গেছে উপজেলা পরিষদের প্রশাসক কার্যক্রম ও সার্বিক চিত্র। 
 
সরকারি-বেসরকারি প্রতিটি দপ্তরের কর্মকাণ্ডে ফিরে এসেছে গতিশীলতা ও স্বচ্ছতা। কমেছে জনভোগান্তি আর বৃদ্ধি পেয়েছে জনসেবার মান।
 
দৌলতখান উপজেলাকে একটি উন্নত আধুনিক জনপদ হিসেবে গড়ে তুলতে নিরালসভাবে কাজ করেছেন তিনি।  জনবান্ধব এই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কর্মকাণ্ডে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন উপজেলার সৎ জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী ও সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।  এদিকে এই সৎ মানুষটার বদলির খবরে গুটা উপজেলা স্তব্ধ হয়েগেছে। 
 
তার বিদায়ী সংবাদে এই উপজেলার  অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইজবুকে তার প্রশংসা বার্তা নিজ নিজ আইডি থেকে ছড়িয়ে দিয়েছেন।
 
জিতেন্দ্র কুমার নাথ  দায়িত্ব নেওয়ার পর দৌলতখান উপজেলা প্রশাসনকে নিজের মতো করে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নেন।
 
দীর্ঘদিনের  অনিয়ম ও দুর্নীতি দূর করে দৌলতখান উপজেলাকে একটি আধুনিক উন্নত জনপদ হিসেবে গড়ে তোলেন।  তার সততা ও কর্মদক্ষতায় উপজেলা পরিষদের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রতিটি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকাণ্ডে স্বচ্ছতা ও গতিশীলতা ফিরে এসেছে ।
 
জিতেন্দ্র কুমার নাথ রাষ্ট্র কর্তৃক নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন ও জনকল্যাণমূলক কাজ করে দক্ষ প্রশাসক হিসেবে উপজেলার সব শ্রেণি-পেশার মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। 
 
সেইসঙ্গে গণমাধ্যম, ফেসবুক, মুঠোফোনের মাধ্যমে পাওয়া বিভিন্ন অভিযোগ দ্রুত সমাধান ও তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের প্রশংসাও কুড়িয়েছেন।
 
একজন ইউএনও হিসেবে জিতেন্দ্র কুমার নাথ দৌলতখানে নির্দিষ্ট সময়ের বেশি থাকবেন না, কিন্তু থেকে গেছে তার কর্ম। দৌলতখানবাসী তাকে আজীবন মনে রাখবে। মহান সৃষ্টিকর্তা আপনার মঙ্গক করুক।