অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, বৃহঃস্পতিবার, ১লা অক্টোবর ২০২০ | ১৬ই আশ্বিন ১৪২৭


বোরহানউদ্দিনে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের নামে ব্যাপক অর্থ বাণ্যিজের অভিযোগ


বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৫ই জুলাই ২০২০ রাত ১০:৩১

remove_red_eye

৬৫





অধিক টকা দিয়েও  সঠিক সেবা পাচ্ছেনা গ্রাহকরা

 বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি : বর্তমানে ইন্টারনেট গ্রাহক দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনেকেই তাদের প্রয়োজনে বাসা বাড়ীতে এবং অফিসে ওয়েব ইন্টারনেট নিতে আগ্রহী হচ্ছে। এ সুযোগে ভোলা বোরহানউদ্দিনে ইন্টারনেট ব্যবসার নামে গ্রাহকদের সাথে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে বোরহানউদ্দিন ফেন্ডস অনলাইন প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। এ প্রতিষ্ঠান হতে প্রতিটি নতুন সংযোগ নিতে গ্রাহকদের গুনতে হয় ৫ হাজার হতে ১০ হাজার টাকা। এছাড়া সঠিক সেবা না পাওয়ারও অভিযোগতো রয়েছেই।
সূত্রমতে জানা গেছে, বোরহানউদ্দিনে ‘‘ফেন্ডস অনলাইন’’ ওয়েব লিংক কমিউনিকেশন ব্রডব্যান্ড ইনটারনেট সংযোগ দিয়ে ইন্টারনেট ব্যবসা করেছেন একটি প্রতিষ্ঠান। বোরহানউদ্দিন হতে কুঞ্জেরহাট পর্যন্ত প্রায় ২২০ জন ইন্টারনেট গ্রাহক রয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠান হতে ইন্টারনেট নতুন সংযোগ নিতে প্রতি গ্রাহকদের গুনতে হয় ৫ হাজার হতে ১০ হাজার টাকা। রাউডার তো গ্রাহকরাই ক্রয় করেন। এছাড়া রয়েছে চরম ভোগান্তি। ইন্টারনেট সার্ভিস ঠিকমত না পাওয়ার অভিযোগ তো রয়েছেই।
পাওয়ার প্ল্যান্ট রোর্ডের মো. ছাদেক মিয়া ফেন্ডস অনলাইন হতে নতুন ইন্টারনেট সংযোগ নিতে প্রায় ১০ হাজার টাকার তার নিজে দেয়ার পরও ১১ হাজার টাকা দিতে হয় তাদেরকে। টিভিতে ইন্টারনেট কানেকশন নিতে দাবী করেন আরোও ১৫০০শত টাকা। ওই টাকা না দেয়ায় তার ইন্টারনেট সেবা কিছু দিন বন্ধ রাখেন। টাকা দেয়ার পর সংযোগ চালু করেন। পৌর ৭নং ওয়ার্ডে মন্নান ডাক্তার নতুন সংযোগ নিতে দিতে হয়েছে প্রায় ৭ হাজার টাকা। ওখান হতে ৪০ গজের মধ্যে নতুন সংযোগ দিতে মাতাবব্বর বাড়ীর মো. হালিমদের কাছে দাবী করেন ৮ হাজার টাকা। এদিকে পৌর ৭নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. অলি পালোয়ান এর বাসার নতুন ইন্টারনেট সংযোগ নেয়ার জন্য তার সহ খরচ দাবী করেন ১০ হাজার ১ শত ৫০ টাকা। এমন বিস্তর অভিযোগ রয়েছে এ ইন্টারনেট ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানটি বিরুদ্ধে।  এছাড়া গ্রাহকরা সঠিক সেবা না পাওয়ার অভিযোগ তো রয়েছেই।
নাম প্রকাশ অনিচ্ছুক সত্বে অনেক গ্রাহকরা জানান, ইন্টারনেটে সকল কার্যক্রম আবশ্যই হওয়ায় অনেকেই ওয়েব লিংক সংযোগ নিতে ইচ্ছুক। কিন্তু নতুন সংযোগ নেয়ার সময় তার সহ আনুষাঙ্গিক খরচের ভয়তে অনেকেই এ সংযোগ নিতে অনিচ্ছুক। তারা বলেন, আমাদেরকে ইন্টারনেট সংযোগ দিয়ে প্রতি মাসে বিল নিবে। কিন্তু তারা কৌশলে নতুন সংযোগ দেয়ার সময়ই মোটা অংকেট টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অনেকে নিজ প্রয়োজনের স্বার্থে মোটা অংকের টাকা দিয়েই এ সংযোগ নিচ্ছে।
এব্যাপারে ওই প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মো. ইব্রাহীম তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে ছাদেকের কাছ হতে সাড়ে ৭ হাজার টাকার নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, আমাদের সংযোগ হতে দূরত্ব হলে তার সহ মালামাল গ্রাহকরা ক্রয় করে দিতে হয়। তিনি আরোও বলেন, অনেক গ্রাহক তাদের নামে মিথ্যাও বলছে।