অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, শনিবার, ৬ই জুন ২০২০ | ২৩শে জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭


ভোলার ভেলুমিয়ায় দফায় দফায় হামলা সংঘর্ষে অহত ২৫


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০শে এপ্রিল ২০২০ রাত ১১:৫৯

remove_red_eye

১৪৮

বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদ:: ভোলার ভেলুমিয়া একটি বাড়ি নির্মানের ইটআনার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোমবার বিকাল সাড়ে ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত দফায় দফায় সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ৪টি বাড়িতে হামলা, ভাংচুর করা হয়। এ সময় ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মহসিন খান, তার ভাই মাসুদ খানসহ আহত হয়েছেন কম পক্ষে ২৫ জন। এদিকে হামলার এক পক্ষের নেতৃত্বে ছিলেন এআরখান গ্রুপে  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সম্পাদক লিটন মাল ও কাওসার গাজি গ্রুপে মাসুদ খান ।

ভেলুমিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আরমান হোসেন জানান, বাড়ি নির্মানের জন্য কাওসার গাজির ক্রয়কৃত ইট নৌকা যোগে বিশ^রোড ঘাটে আসে। ওই ইট পরিবহনের সময় বাধা দেন এআর খানের স্ত্রী । এ সময় কাওসার গাজির বাড়ির মহিলারাও বেড় হয়ে এলে কথাকাটাকাটি চলে। এক পর্যায়ে খবর পেয়ে ছুটে আসেন পুরষরা। শুরু হয় ইটপাটকেল নিক্ষেপ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। এর পরেই আত্মীয়তার টানে ছুটে জান লিটন মাল।

মহিসন খান জানান, লিটন মাল ভেলুমিয়া বাজারের রিকসা চালকসহ কয়েকশ মানুষ নিয়ে ৫ কিলোমিটার দুরের বিশ^রোড এলাকায় হামলা চালায়। এ সময় আলাউদ্দিন, মাইনুদ্দিন, মোঃ ইব্রাহিম, মাসুদ খানের বাড়িতে হামলা করে। লুটপাট করে। এমন হামলার সময় মহসিন খান ভেলুমিয়া বাজারে আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ অবস্থান করছিলেন। ওই সময় লিটন মালের নেতৃত্বে তার উপরও হামলা চালানো হয়। তিনি অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পান বলেও জানান।

তবে লিটন মাল তার নেতৃত্বে হামলার বিষয় অস্বীকার করেন। তিনি জানান, সামনে ইউপি নির্বাচন। তাই জনসমর্থন আদায়ের জন্য দলীয় নেতারা এক একজন এক গ্রুপকে সমর্থন করায় এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। তিনি এ হামলার ঘটনার জন্য খান গ্রুপকে দায়ি করেণ।।




আজকের সাহরীর ও ইফতারে সময় সূচী ভোলা জেলার জন্য