ভোলা, বুধবার, ১লা এপ্রিল ২০২০ | ১৭ই চৈত্র ১৪২৬

বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক


১৭ই মার্চ ২০২০ রাত ১১:৩৮




২৪ প্রবাসী নিয়ে আতংকে মনপুরার দেড় লাখ মানুষ

মনপুরা উপজেলা




মনপুরা প্রতিনিধি : ভোলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলার মনপুরা সদর হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার কোন যন্ত্রপাতি নেই। এই  বিষয়ে স্থানীয় জনগণকে সর্তক করতে আজ অবধি কোন ব্যবস্থা নেয়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এমনকি বিদেশ ফেরতদের বিষয়ে কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, এখানে আইসোলেশন জন্য একটি রুম রয়েছে। এদিকে গত ৫ দিনে ভারত থেকে ১৫ জন, ওমান থেকে ৪ জন, সৌদিআরব থেকে ১ জন, সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে ৩ জন ও মালেশিয়া থেকে ১ জনসহ ২৪ জন বিদেশ ফেরত মানুষ মনপুরায় অবস্থান করছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে এদের বিষয়ে কোন খোঁজ খবর না নেওয়ায় আতংকে রয়েছে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলার দেড় লাখ বাসিন্দা। স্থানীয়দের দাবী এদের সবাইকে একটি বিশেষ জায়গায় রেখে পর্যবেক্ষণে হোম কোয়ারইন্টানে রাখা প্রয়োজন। তা নাহলে এদের মধ্যে কেউ করোনা ভাইরাস নিয়ে আসলে পুরো এলাকায় এর বিস্তার ঘটতে পারে।

এদিকে করোনা বিষয়ে ও বিদেশ ফেরত ২৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে  উপজেলা নির্বাহী অফিসারে কার্যালয়ে ইউএনও বিপুল চন্দ্র দাসের সভাপত্বিতে জরুরি সভা করে উপজেলা প্রশাসন। ওই সভায় হাজিরহাট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে কোয়ারেন্টাইন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মাহমুদুর রশীদ জানান, করোনা শনাক্তে কোন ধরণের যন্ত্রপাতির ব্যবস্থা নেই হাসপাতালে। তবে ৩ বেডের একটি আইসোলেশন রুম আছে। দুই-একদিনের মধ্যে যন্ত্রপাতি আসবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপুল চন্দ্র দাস জানান, করোনা ও বিদেশ ফেরত নিয়ে জরুরি সভা করা হয়েছে। বিদেশ ফেরত ২৪ জনকে বাড়িতে অবজারভেশনে করা হবে। এছাড়াও বাজারে বাজারে মাইকিংসহ সচেতনা সভা করা হবে। এছাড়াও পরিস্থিতি বিবেচনায় হাজিরহাট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোয়ারন্টাইন করা হবে।