অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ২৮শে ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ১৫ই ফাল্গুন ১৪২৭


বিজয়ের সেই মাহেন্দ্রক্ষণে ভোলায় আনন্দে মেতে উঠে মুক্তিযোদ্ধাসহ সাধারণ মানুষ


বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫ই ডিসেম্বর ২০২০ রাত ১১:০৪

remove_red_eye

৪৯



হাসনাইন আহমেদ মুন্না : ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর মহান মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের সেই মাহেন্দ্রক্ষণে ভোলাতেও আনন্দে মেতে উঠে মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। পাকবাহিনীর রেসকোর্স ময়দানে আত্বসমর্পনের খবর রেডিওতে প্রচারের ফলে মুহুর্তের মধ্যে উল্লাসে ফেটে পড়ে দ্বীপজেলা ভোলার মানুষ। যে যার অবস্থান থেকে সেদিন রাজপথে নেমে আসে বিজয়ের সুখে। রাজপথে স্রোতের মত মানুষের বাঁধভাঙ্গা উচ্ছাস বিজয়কে বরণ করে নেয়। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, তোমার নেতা আমার নেতা, শেখ মুজিব, শেখ মুজিব, ইত্যাদী ¯েøাগানে রাজপথ প্রকম্পিত হয় ১৬ ডিসেম্বর।
মুহুর্তের মধ্যে সকল সরকারি-বেসরকারি ও বড় বড় ভবনের পাকিস্থানী পতাকা খুলে পুড়িয়ে ফেলা হয়। উত্তোলণ করা হয় লাল সবুজের স্বাধীন দেশের পতাকা। একইসাথে চলে রং ছিটানোর উৎসব ও মিষ্টি বিতরণ। যদিও ১০ ডিসেম্বর পাকবাহিনীর পলায়নের মাধ্যমে ভোলা মুক্ত হওয়ার পর থেকেই এখানে আনন্দ চলতে থাকে। ১৬ ডিসেম্বর যেন তা পূর্ণাঙ্গ রুপ লাভ করে।
জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক কমান্ডর ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: দোস্ত মাহমুদ জানান, ১৬ ডিসেম্বর দেশ স্বাধীন হওয়ার খবরে আমাদের আনন্দের সীমা থাকেনা। আমরা মুক্তিযোদ্ধারা আকাশে ফাঁকা গুলি করে বিজয়কে স্বাগত জানাই। বিভিন্ন স্থান থেকে মুক্তিযোদ্ধারা শহরে সমবেত হতে থাকে । জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান দিতে দিতে আমরা রাজপথে নেমে যাই। সেদিন সাধারণ মুক্তিকামী মানুষও আমাদের সাথে পথে নেমে আসে। এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।
তিনি জানান, মুক্তিযোদ্ধা হাই কমান্ড ছিদ্দিকুর রহমান, আলী আকবর (বড় ভাই), হাবিবুর রহমান, মো: ছাদেক, আব্দুল মমিন টুলু (বর্তমান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান), নানু ভাই, শষি, মো: সাইফুল্লাহ, মো: ছালেহ আহমেদ, গাজী জয়নাল আবেদিন, তিনি মো: দোস্ত মাহমুদ, রফিকুল ইসলাম, একে এম খাইরুল আলম ভুলু, আবুল হোসেন, সুবেদার সিদ্দিক, মাহবুবুর রহমান শিশু, ফিরোজ আহমেদ, মো: রাজ্জাক, মুজিবুর রহমান, সফিকুল ইসলামসহ আরো অনেক মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণে শহরে বিজয় র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি কমান্ডর ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: সফিকুল ইসলাম বাসস’কে বলেন, বিকেলে শহরের সদরোডস্থ বরিশাল দালানের সামনে জনতা ও মুক্তিযোদ্ধারা মিলে বিজয় সমাবেশ করি আমরা। দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের আনন্দ, বেদনা, কষ্টের অনুভুতি প্রকাশ করি সেই সমাবেশে। সাধারণ মানুষ ব্যাপক করোতালী ও উচ্ছাসের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধাদের অভিবাদন জানান।
মুক্তিযোদ্ধা একে এম খাইরুল আলম ভুলু ব বলেন, ১৬ ডিসেম্বর বাঙালী জাতীর জীবনে যেমন গৌরবের দিন, তেমনি প্রত্যেক মুক্তিযোদ্ধার জীবনে স্বরণীয় দিন। কারণ আমরা বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে যুদ্ধে যাই। তাই স্বাধীনতার চেয়ে আরধ্য আর কিছু ছিলোনা আমাদের কাছে।





আ’লীগ সরকারের আমলে কৃষিখাতে আধুনিকায়ন হয়েছে:এমপি শাওন

আ’লীগ সরকারের আমলে কৃষিখাতে আধুনিকায়ন হয়েছে:এমপি শাওন

তজুমদ্দিনে শালিস বৈঠকে মারামারিতে আহত-৭

তজুমদ্দিনে শালিস বৈঠকে মারামারিতে আহত-৭

ভোলা পৌরসভা নির্বাচনে মগ ভোট অনুষ্ঠিত

ভোলা পৌরসভা নির্বাচনে মগ ভোট অনুষ্ঠিত

ভোলায় গাছ কাটা নিয়ে হামলা সংর্ঘষ,আহত-৫

ভোলায় গাছ কাটা নিয়ে হামলা সংর্ঘষ,আহত-৫

চাঁচড়া ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হান্নানের মতবিনিময় সভা

চাঁচড়া ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হান্নানের মতবিনিময় সভা

ভোলায় দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর  কর্মীদের মধ্যে সংর্ঘষ : আহত-১৫

ভোলায় দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে সংর্ঘষ : আহত-১৫

ভোলায় নৌকার প্রচারণায় দলমত  নির্বিশেষে মানুষের ঢল

ভোলায় নৌকার প্রচারণায় দলমত নির্বিশেষে মানুষের ঢল

ভোলায় কাউন্সির প্রার্থী মিজান নাটক সাজিয়ে মিথ্যা অভিযোগ করছে: লিপু

ভোলায় কাউন্সির প্রার্থী মিজান নাটক সাজিয়ে মিথ্যা অভিযোগ করছে: লিপু

ভোলায় কাউন্সির প্রার্থী মিজানে কর্মীদের উপর লিপুর কর্মীদের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ভোলায় কাউন্সির প্রার্থী মিজানে কর্মীদের উপর লিপুর কর্মীদের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

চরফ্যাশনে পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় নৌকা প্রতিকের উঠান বৈঠক

চরফ্যাশনে পৌর নির্বাচনী প্রচারণায় নৌকা প্রতিকের উঠান বৈঠক

আরও...