অনলাইন সংস্করণ | ভোলা, রবিবার, ৩রা ডিসেম্বর ২০২৩ | ১৯শে অগ্রহায়ণ ১৪৩০


ইউনেস্কোর তিন কমিটিতে নির্বাচিত বাংলাদেশ


বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮ই নভেম্বর ২০২৩ সন্ধ্যা ০৬:০৫

remove_red_eye

২৮

জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি সংস্থার (ইউনেস্কো) তিনটি গুরুত্বপুর্ণ কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। 
এই কমিটিগুলো হলো,ইউনেস্কো‘র নির্বাহী বোর্ড (২০২৩ থেকে ২০২৭ মেয়াদ), ইন্টারন্যাশনাল কো- অডিনেটিং কাউন্সিল ফর দ্যা ম্যান অ্যন্ড বায়োস্ফিয়ার এবং ইন্টারগভামেন্টাল বায়োএথিক্স কমিটি। 
প্যারিসে অবস্থিত ইউনেস্কো সদর দপ্তরের জনসংযোগ শাখা এবং ফ্রান্সের (বাংলাদেশ) দুতাবাস থেকে এ তথ্য জানা  যায়। 
ইউনেস্কো সদর দপ্তর জনসংযোগ শাখার তথ্য মতে, গত ১৫ নভেম্বর প্যারিসের স্থানীয় সময় সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত নির্বাহী বোর্ডের সদস্য নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলে। নির্বাহী বোর্ডের ১৮৪ সদস্যের মধ্যে ১৮১ সদস্য ভোট দেয়।  বাংলাদেশ ১৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাহী বোর্ডের সদস্য নির্বাচিত হয়। এই ফলাফল ঘোষণার পর ইউনেস্কো মহাপরিচালক অঁদ্রে আজুলে বাংলাদেশের শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনিকে অভিনন্দন জানান এবং উভয়ে একযোগে আগামী দিনেও  কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। 
 গত ১৬ নভেম্বর  ইন্টারন্যাশনাল কো- অডিনেটিং কাউন্সিল ফর দ্যা ম্যান অ্যন্ড বায়োস্ফিয়ার এবং ইন্টারগভামেন্টাল বায়োএথিক্স কমিটিতে নির্বাচিত হয় বাংলাদেশ। 
এর মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো ইউনেস্কোতে মানুষ ও জীবজগতের সংরক্ষণ এবং জৈবনীতি নিয়ে নেতৃত্ব প্রদানের সুযোগ লাভ করলো। 
ইন্টারন্যাশনাল কো- অডিনেটিং কাউন্সিল ফর দ্যা ম্যান অ্যন্ড বায়োস্ফিয়ার কমিটির  নির্বাচনে বাংলাদেশ ১৪০ ভোট পেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। আর ইন্টারগভামেন্টাল বায়োএথিক্স কমিটিতে নির্বাচন হবার কথা থাকলেও পরবর্তীতে ইরান সরে দাঁড়ায়।  এবার বাংলাদেশ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়।
বাংলাদেশ থেকে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল এই সাধারণ সভায় যোগ দেন।
ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও ইউনেস্কোর স্থায়ী প্রতিনিধি খন্দকার মো. তালহা  বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
তিনি বলেন, চলতি ইউনেস্কো‘র ৪২ তম সাধারণ সভায়  তিনটি গুরুত্বপূর্ণ কমিটিতে বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছে। এটি দেশের জন্য গৌরবের। নির্বাহী বোর্ড ছাড়াও এবার দুটি নতুন কমিটিতে বাংলাদেশ নিবার্চিত হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, এর মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রথম বারের মতো পরিবেশ ও বিজ্ঞান ক্ষেত্রে কাজের সুযোগ পাবে এবং বিশ্বদরবারে নিজের অবস্থান সুসংহত করবে।
 শিক্ষামন্ত্রী গত ১২ নভেম্বর থেকে ১৬ নভেম্বর সাধারণ  সভার বিভিন্ন অধিবেশনে অংশ নিয়েছেন। 
তিনটি গুরুত্বপূর্ণ কমিটিতে নির্বাচিত হওয়ায় শিক্ষামন্ত্রী দীপুমনি বঙ্গবন্ধুকন্যা ও প্রধানমন্ত্রী   শেখ হাসিনাকে প্রাণঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রাজ্ঞ, দূরদর্শী, সাহসী নেতৃত্বে অগ্রগামী বাংলাদেশ আজ বিশ্বসভায় সবার প্রশংসা ও আস্থা অর্জন করেছে। একই সঙ্গে  তিনি ইউনেস্কোর স্থায়ী প্রতিনিধি ও ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত  খন্দকার মো. তালহা, দূতাবাসের প্রথম সচিব ওয়ালিদ বিন কাসেম ও  বাংলাদেশ ন্যাশনাল কমিশন ফর ইউনেস্কো, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সবাইকে অভিনন্দন জানান। 
বিশ্বে শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতির প্রসার এবং উন্নয়নের মাধ্যমে মানুষের জীবন মানের উন্নয়নের প্রসার করা ইউনেস্কোর কার্যক্রম। ১৯৪৫ সালের নভেম্বরে লন্ডন সম্মেলনে ইউনেস্কো প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত হয়। ১৯৪৬ সালে এই সংস্থা জাতিসংঘের সহায়ক সংস্থা হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে।  প্যারিসে এর সদর দপ্তর অবস্থিত।
উল্লেখ্য, এবার  ইউনেস্কোর সাধারণ সভার অধিবেশনে ১৯৫টি দেশের প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছেন। ইউনেস্কোর এই সাধারণ সভা গত ৭ নভেম্বর থেকে শুরু হয়, শেষ হবে ২২ নভেম্বর।

সুত্র বাসস