বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদক ।। “মানসম্মত কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্যসেবার সঠিক বাস্তবায়ন চাই” এই ¯েøাগানকে সামনে রেখে ভোলায় আন্তর্জাতিক নারী স্বাস্থ্য দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে সোমবার (২৭ মে) সকালে তারুণ্যের কন্ঠস্বর-প্ল্যাটফর্ম এর আয়োজনে নারীপক্ষ এবং অধিকার এখানে, এখনই প্রকল্প এর সযোগিতায় সকালে আলোচনা সভা ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় ভোলা প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি আইনজীবী কামাল উদ্দিন সুলতান এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক মাহামুদুল হক আযাদ। এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: জিহাদ হাছান,লেডিস ক্লাবের সেক্রেটারী খাদিজা আক্তার স্বপ্না, ব্রাক ভোলা জেলা প্রতিনিধি মো: আশরাফুল আলম,কোস্ট ট্রাস্ট এর আইইসিএম প্রকল্পের প্রকল্প সম্মনয়কারী মো: মিজানুর রহমান,ডিপিএইচ এন সুফিয়া বেগম প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন- এনটিএন বাংলা জেলা প্রতিনিধি ছিদ্দিকউল্ল্যাহ, বাংলা টিভির জেলা প্রতিনিধি জুয়েল সাহা, বাল্য বিয়ে ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সম্পাদক শাহরিয়ার জিলন।এসময় কিশোরীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ইমা,ফারজানা,ফারিয়া,গোপাল চন্দ্র দে প্রমুখ।
আলোচনা সভায় কিশোর-কিশোরীরা তাদের বিভিন্ন স্বাস্থ্য বিষয়ক সমস্যার কথা তুলে ধরে বলেন,কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্য সেবার মান উন্নয়ন করতে করতে হবে। যাতে করে একজন কিশোরী সেবা নিতে গেলে সঠিক ভাবে প্রাপ্য সেবা পায়। পাশাপাশি কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য সেবাদানকারীদের দক্ষ করে গড়ে তুলতে পর্যাপ্ত বাজেট দিতে হবে এবং সেবাদানকারী সংখ্যা বাড়ানোর পাশাপাশি সেবা কেন্দ্রে পর্যাপ্ত ঔষধ মজুদ কথা বলেন।
এসময় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে কিশোর-তরুনদের মধ্যে যৌন প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতার অভাব রয়েছে। যার ফলে বাল্য বিয়ে,কম বয়সে গর্ভধারন,প্রসূতি মায়ের মৃত্যু,দুর্বল স্বাস্থ্য,অপুষ্ট শিশুর জন্ম বেড়ে চলেছে। তাই নারীদের স্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতন করে গড়ে তুলতে হবে। মাকে হতে হবে মেয়ের বন্ধু। তাহলে আমাদের কিশোর-কিশোরী ও নারীরা প্রজনন স্বাস্থ্যর দিক দিয়ে সুস্থ থাকবে।
জেএসবি/২৭ মে-১৯