বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধি : ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় শনিবার জমি জমার বিরোধকে কেন্দ্র করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ও বসত ঘরে হামলা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এতে করে কুপিয়ে জখমসহ অন্তত ১০ আহত হয়েছে। এসব ঘটনায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে উভয় গ্রæপকে সর্তক করেন ।

চিকিৎসাধিন আহত ব্যবসায়ী তোতা মিয়া জানান, তিনি তার মালিকানাধীন দোকন ঘরে ৩৫ বছর ধরে ব্যবসা করছেন। পুরাতন দোকানঘর মেরামত করতে গেলে এলাকার মৃত ইয়াছিনের পুত্র সন্ত্রাসী আয়ুব আলী রুমি সন্ত্রাসীদের নিয়ে কাজে বাধা দেয়। এক পর্যায়ে হামলা চালিয়ে দোকান ভাংচুর করতে থাকে। এ সময় প্রতিবাদ করতে গেলে তোতামিয়াসহ কয়েকজনকে কুপিয়ে জখম করে। প্রতিপক্ষ আইয়ুব আলী গ্রæপের দাবি তোতা মিয়া অবৈধ ভাবে তাদের জমি দখল করে আছেন।
অপরদিকে বোরহানউদ্দিন উপজেলার পক্ষিয়া ইউনিয়নে হানিফ মিয়ার বসত ঘরে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। ভুক্তভোগী হানিফ মিয়া জানান, তিনি তার প্রতিপক্ষ মিলন মিয়ার কাছ থেকে ৮ শতাংশ জমি ১ লক্ষ দশ হাজার টাকায় ক্রয় করার জন্য ১ লক্ষ টাকা বায়না করেন। দীর্ঘ দিন দলিল দেয়ার কথা বলে তালবানা করতে থাকেন মিলন মিয়া। এ নিয়ে শনিবার সকালে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে মিলন মিয়া বহিরাগত সন্ত্রাসীদের এনে হামলা চালায় । সন্ত্রাসীরা ঘরবাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে, ঘরের মালামাল ও টাকা লুট করে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন হানিফ মিয়া। এ সময় ৪/৫ জন আহত হয়। বোরহানউদ্দিন থানার ওসি এনামুল হক সাংবাদিকদের জানান, উভয় ঘটনায় পুলিশ ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।