বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক  \ অবসর ও কল্যাণ তহবিলে অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তনের প্রতিবাদে ভোলায় বিক্ষোভ সমাবেশ ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে জেলার বিভিন্ন বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা। বৃহষ্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম ভোলা জেলার আয়োজনে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচি পালন করেন তারা। এসময় উপস্থিত শিক্ষকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা যায়। বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন শিক্ষক-কর্মচারীরা।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. সাইদুল হাসান সেলিম, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মো. রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি (বাকশিস) ভোলা জেলার সাধারণ সম্পাদক মো. মাকসুদুর রহমান, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (কামরুজ্জামান) ভোলা জেলার সভাপতি মীর আমির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সাফিয়া খাতুন, রতনপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জাকির হোসেন তালুকদার, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিএ) ভোলার সাধারণ সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন প্রমূখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের সরকারি অংশের বেতন থেকে অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টে অতিরিক্ত যে ৪ শতাংশ কর্তনের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে আমরা তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ২০১৭ সাল থেকেই এই অমানবিক প্রজ্ঞাপনটি বাতিলের দাবিতে দেশব্যাপী শিক্ষক কর্মচারীরা বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে আসছে। এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাবর স্মারকলিপিও প্রদান করা হয়েছে। এর পরও কতিপয় স্বার্থান্বেষী অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক নেতাদের যোগসাজশে অতিরিক্ত কর্তনের প্রজ্ঞাপন জারি করে শিক্ষা মন্ত্রনালয়। শিক্ষকদের সাথে কোনো আলোচনা না করে অতিরিক্ত কর্তনের এ আদেশ অমানবিক।

এ সময় বক্তারা অতিরিক্ত ৪ শতাংশ কর্তনের তীব্র সমালোচনা করে অভিলম্বে এ আদেশটি প্রত্যাহারের জোর দাবি জানান।