ভোলায় আ’লীগের
বিশাল বিজয় ও
আনন্দ র‌্যালী

বাংলার কন্ঠ প্রতিবেদক : বাণিজ্য মন্ত্রাণায়ন সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য সাবেক বাণিজ্য মন্ত্রী ও ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, এই স্বাধীনতার ইতিহাস জিয়াউর রহমান ও তার সহধর্মীনি বেগম খালেদা জিয়া বিকৃতি করার চেষ্টা করেছে। স্বাধীনতা যুদ্ধে আমাদের প্রায় ৩০ লক্ষ লোক শহীদ হয়েছিল। আর খালেদা জিয়া বলেছিল ৩০ লক্ষ লোক শহীদ হয়নি। যার কারনে বিশ্বের কাছে আমাদের এই গনহত্যা দিবস এর স্বকৃতি পেতে বেগ পেতে হয়েছিল। আমরা মনে করি ২৫ মার্চ ছিলো গণহত্যা দিবস। আমিই প্রস্তাব করেছিলাম পালামেন্টে ২৫ মার্চ গনহত্যা দিবস পালন করার জন্য। প্রধানমন্ত্রী সেই প্রস্তাব সমর্থন করে সিদ্বান্ত নিয়ে সোমবার গণহত্যা দিবস পালন করেছি।
মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বিজয় ও আনন্দ র‌্যালির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
তিনি বলেন,জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা যার হাতে আওয়ামী লীগের পতাকা তুলে দিয়ে ছিলাম। সেই পতাকা হাতে নিয়ে নিষ্ঠার সাথে সততার সাথে যোগ্যতার সাথে আজকে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার পথে এগিয়ে চলেছে। বাংলাদেশকে বিশ্বে মর্যাদাশালী রাষ্ট্রে পরিনত করেছে।
এদিকে বাংলা স্কুল মাঠে সমাবেশ শেষে তোফায়েল আহমেদের নেতৃত্বে ভোলা শহরে বর্নাঢ্য এক বিজয় ও আনন্দ র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীতে জেলা আওয়ামী লীগ,যুবলীগ,ছাত্র লীগ,সেচ্ছাসেবক লীগ,শ্রমিক লীগসহ বিভিন্ন অংঙ্গসংগঠনের কয়েক হাজার নেতাকর্মী অংশ নেয়।