বাংলার কণ্ঠ প্রতিবেদকনিষেধাজ্ঞার সময় ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর জেলেদের বিকল্প কর্ম-সংস্থানের মাধ্যমে উন্নয়নের লক্ষে মৎস্য ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে ভোলার শহরের ক্রিষ্টাল ইন হোটেলের হল রুমে কোস্ট ট্রাস্টের ইকোফিশ প্রকল্পের আয়োজনে ভোলা সদরের অর্ধ শতাধিক পুরুষ ও নারী জেলেদের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কোস্ট ট্রাস্টের সিনিয়র সমন্বয়কারী মোঃ জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আজাহারুল ইসলাম।
ভোলা কোস্ট ট্রাস্টের সহ-সমন্বয়কারী সোহেল মাহমুদের সঞ্চালনায় এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, ঢাকা কেন্দ্রীয় ক্ষুদ্র মৎস্য সমিতির সভাপতি মোঃ আনোয়ার হোসেন ভূঁইয়া, ওয়াল্ডফিশ বাংলাদেশের রিসার্স এ্যাসোসিয়াড অংকুর মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, ভোলার খামার ব্যবস্থাপক মোঃ জাকির হোসেনসহ প্রমূখ।
এসময় অনুষ্ঠানে বাংলা টিভি ও জাগো নিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কম’র ভোলা প্রতিনিধি জুয়েল সাহা, দৈনিক বাংলার কণ্ঠের স্টাফ রিপোর্টার এম শরীফ আহমেদসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ উপস্থি ছিলেন।
এসময় বক্তারা বলেন, নদীতে মাছ শিকার না করতে পারলেও জেলেরা এখন অসহায় ও মানবেতর জীবন যাপন করে না। ভোলার জেলেরা এখন অনেক সচেতন হয়েছে। তারা কোস্ট ট্রাস্টের ইকোফিশ প্রকল্প থেকে প্রশিক্ষণ ও বিভিন্ন ধরণের সহযোগিতা নিয়ে বিকল্প কর্ম সংস্থানের মাধ্যমে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করছে।
উল্লেখ্য, ভোলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার এলাকায় ১ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত মাছের অভয়শ্রম হওয়ায় এসময় নদীতে সব ধরণের মাছ শিকার, আহরণ, পরিবহন, বাজারজাত ও মজুতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার । নদীতে মাছ শিকার করতে না পারায় এসময় গুলোতে জেলেরা মানবেতর জীবন কাটায়। এসময় জেলেদের বিকল্প কর্ম সংস্থানের মাধ্যমে জেলেদের স্বাবলম্বী করে যাচ্ছে এ প্রকল্প।