জুয়েল সাহা : দৈনিক বাংলার কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশ করার পর ভোলায় ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে পড়–য়া এক ছাত্রীকে উত্যাক্ত করার অভিযোগে মোঃ সুজন (১৮) নামে এক বখাটে যুবককে আটক করা হয়েছে। পরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আব্দুল হাসনাত খান ওই যুবককে ১ বছরের কারাদন্ড প্রদান করেন। রবিবার বেলা ১১ টার দিকে ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর গ্রাম থেকে ওই যুবককে আটক করা হয়। পরে দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাদন্ড প্রদান করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে সাংবাদিকদের কাছে বলে নিশ্চিত করেন ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক।
অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘ দিন ধরে রাজাপুর ইউনিয়নের শান্তিরহাট মধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে পড়–য়া স্কুল ছাত্রীকে (১৩) স্কুলে যাওয়া-আসার পথে উত্যাক্ত করে শ্যামপুর গ্রামের মোঃ কামালের ছেলে সজিব (১৮)। ছাত্রীর পিতা আব্দুল জলিল স্থানীয় গণ্যমাণ্য ও ইউপি সদস্যকে জানালে কোন সমাধান পায়নি। বিষয়টি স্থানীয়দের জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে সজিব ছাত্রীর পিতা অসহায় অটোরিক্সা চালক আবদুল জলিলকে তার গাড়ীতে গাঁজা ও ইয়াবা রেখে বিভিন্ন মামলা ফাসানো ও মেয়েকে তুলে নেওয়ার হুমকী দেয়। এতে করে ভয়ে ওই ছাত্রীর স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয় অসহায় পরিবারটি। এঘটনার পর গত শনিবার দুপুরে ছাত্রীর পিতা ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক ও ভোলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এর পর আজ রবিবার সকালে পুলিশ তাকে আটক করলে তাকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ১ বছর কারাদন্ড প্রদান করা হলে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।