জুন্নু রায়হান : ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আমি বাণিজ্যমন্ত্রী থাকাকালীন যে স্বর্ণনীতিমালা তৈরি করেছি তাতে অদূর বভিষ্যতে বাংলাদেশ বহির্বিশ্বে স্বর্ণালঙ্কার রপ্তানি করে বিপুল বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে সক্ষম হবে এবং দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। ভোলা জেলা জুয়েলারি মালিক সমিতির নব নির্বাচিত কমিটির নেতৃবৃন্দ তোফায়েল আহমেদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতকালে তোফায়েল আহমেদ একথা বলেছেন। এ সময় নব নির্বাচিত কমিটির নেতৃবৃন্দ ফুল দিয়ে তোফায়েল আহমেদকে শুভেচ্ছা জানান।
গতকাল সকালে তোফায়েল আহমেদের ঢাকাস্থ বনানীর বাসভবনে ভোলা জেলা জুয়েলারি মালিক সমিতির নব নির্বাচিত পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অবিনাশ নন্দির নেতৃত্বে নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দ সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের সাথে সাক্ষাত করেছেন। এ সময় নেতৃবৃন্দ তোফায়েল আহমেদের হাতে ফুলের শুভেচ্ছা তুলে দেন।
পরে সমিতির সাধারণ সম্পাদক অবিনাশ নন্দি বলেন, তোফায়েল আহমেদ বণিজ্যমন্ত্রীর দায়িত্বে থাকাকালীন একটি যুগপোযুগী স্বর্ণনীতিমালা করেছেন। ওই নীতিমালা চালুর ফলে ব্যবসায়ীরা সরাসরি বিদেশ থেকে স্বর্ণ আমদানী করার সুযোগ পায়। তা ছাড়া স্বর্ণব্যাবসায়ী এবং অলংকার প্রস্তুতকারীদের জন্য আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে অলংকার প্রস্তুত এবং স্ব-স্ব অলঙ্কারে প্রস্তুতকারীর সিল থাকার নির্দেশনাও ছিল ওই নীতিমালায়। এর আগে দেশে কোন স্বর্ণ নীতিমালা ছিল না। ব্যবসায়ীরা সরাসরি স্বর্ণ আমদানী করতে পারতেন না। ফলে ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন সময় হেনস্তার শিকার হতেন এবং সবসময় আতঙ্কের মধ্যে থাকতেন। কিন্তু স্বর্ণ নীতিমালা চালু হওয়ার পর ব্যবসায়ীরা এখন স্বচ্ছন্দে ব্যবসা করতে পারছেন। আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে প্রস্তুত করায় দেশের স্বর্ণালঙ্কার এখন বিদেশেও সমাদ্রিত হচ্ছে। স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের ব্যবসার ক্ষেত্রে অভাবনীয় এক স্বর্ণালী যুগের সুচনা করে দেয়ায় ভোলার ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের কাছে কৃতজ্ঞাতা প্রকাশ করেন।